বালিয়াকান্দির ঠাকুর নওয়াপাড়ার ভ্যানচালক সুবীর হত্যা মামলা্র প্রধান আসামী আলাম গ্রেফতার

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৫:০৩ অপরাহ্ণ ,২৮ অক্টোবর, ২০১৪ | আপডেট: ৫:০৯ অপরাহ্ণ ,২৮ অক্টোবর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুরের ঠাকুর নওয়াপাড়া গ্রামের ভ্যানচালক সুবীর দাস (৪০) হত্যা মামলা্র প্রধান আসামী আলম ওরফে আলাম (৩৮) কে গত রবিবার রাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আলাম একই গ্রামের শফিজউদ্দিন ওরফে ভেজা’র ছেলে। তবে আলামের দুই সহযোগী এখনও গ্র্রেফতার হয়নি।

জানাগেছে,উপজেলার ঠাকুর নওপাড়া গ্রামের মৃত সুধীর দাসের ছেলে সুবীর দাস ঋণগ্রস্ত হওয়ায় তার স্ত্রী কমলা দাস (৩২)কে টাকার বিনিময়ে অন্য পুরুষের সাথে অবৈধ মেলামেশার জন্য সুযোগ তৈরী ও বাধ্য করতো। প্রতিবাদ করলে মাঝে মধ্যেই সে তার স্ত্রীকে মারপিট করতো। ইতিপূর্বে বিষয়টি কমলা দাস তার চাচী শ্বাশুরীকে জানিয়েছিল। গত ১৪ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে খাওয়া দাওয়া করে বাড়ীর সবাই ঘুমিয়ে গেলে রাত ১০টার দিকে সুবীর দাস তার স্ত্রী কমলাকে বলে রাত সাড়ে ১২টার দিকে (১৫ অক্টোবর) একই গ্রামের শফিজ উদ্দিন ওরফে ভেজার ছেলে আলম ওরফে আলাম (৩৮) ও তার ২ বন্ধু পার্শ্ববর্তী দিপিল কুমার সরকারের মেহগনি বাগানে আসবে, ১৫০০ টাকার বিনিময়ে তোমার সাথে মেলামেশা করবে। রাত সাড়ে ১২টার দিকে সুবীর দাস ও তার স্ত্রী কমলা দাস সেখানে গিয়ে উল্লেখিতদের দেখতে পায়। এরপর কমলা আলামের সাথে অবৈধ মেলামেশার জন্য শাড়ী কাপড় খুলে নির্ধারিত ১৫শত টাকা চায়। এ সময় উত্তেজিত হয়ে আলাম কমলা দাসকে মারপিট করার চেষ্টা করলে সে ব্লাউজ ও পেটিকোট পড়েই দৌড়ে বাড়ী এসে সবাইকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে ঘটনার বর্ণনা করে। এ ঘটনার পর বাড়ীর লোকজন ঘটনাস্থলে এসে সুবীর ও আলাম এবং তার ২বন্ধুকে দেখতে না পেয়ে বাড়ীতে এসে যে যার মতো ঘুমিয়ে পড়ে। ভোরে ওই মেহগনি বাগানের মধ্যে একটি আম গাছের ডালের সাথে সুবীর দাসের মৃত দেহ ২ হাত ও ২ পা রশি দিয়ে বাধা এবং ঝুলন্ত অবস্থা পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় গত ১৫ অক্টোবর নিহতের ভাই প্রবীর দাস বাদী হয়ে আলাম ও তার দুই সহযোগীকে আসামী করে বালিয়াকান্দি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।মামলায় আলাম ও তার ২ বন্ধু সুবীরকে মারপিটের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মৃত দেহের গলায় রশি দিয়ে আম গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখে বলে অভিযোগ করা হয়।

বালিয়াকান্দি থানার এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন জানান গত রবিবার রাত ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমি এসআই জাহিদুল ইসলাম, এএসআই গোলাম হোসেন অভিযান চালিয়ে ইসলামপুর ইউনিয়নের নওপাড়া এলাকা থেকে আলামকে গ্রেফতার করি। গত সোমবার আদালতের মাধ্যমে আলামকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার অক্টোবর ২৮,২০১৪/ ‌০৩:২৮ পিএম/ তামান্না

 


এই নিউজটি 1030 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments