,

সর্বশেষ :
সুষ্ঠু নির্বাচন হলে রাজবাড়ী-১ আসন পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হবো : অ্যাড. খালেক রাজবাড়ী-১ আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী অ্যাড. আসলাম মিয়ার গণসংযোগ রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ইমদাদুল হক বিশ্বাস রাজবাড়ীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন রাজবাড়ীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন আশরাফুল ইসলাম রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য জাতীয় পার্টির মনোনয়ন ফরম নিলেন মিল্টন প্রত্যেকটি মানুষের ঘরে শান্তি পৌঁছে দেওয়া হবে : রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার রাজবাড়ীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চরমপন্থি নেতা নিহত রাজবাড়ীতে বিএনপি’র ২৭ নেতাকর্মী কারাগারে

মিজানপুরের কাওছার হত্যা মামলার ৭আসামীর জামিন বাতিল : কারাগারে প্রেরণ

News

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের দয়ালনগর গ্রামের কাওছার সরদার(২৫) হত্যা মামলার ৭জন আসামীর অন্তবর্তী কালীন জামিন বাতিল করে তাদেরকে কারাগারে প্রেরণ করেছে আদালত।

এরা হলো,দয়ালনগর গ্রামের শিহাব মন্ডল(৪৮), আনোয়ার হোসেন(৪৫) ও শাখাওয়াত হোসেন(৪৩), জৌকুড়া গ্রামের জুয়েল মন্ডল(২৫), সোহেল(৩০) ও মাসুদ মন্ডল(৩৩) এবং নয়নদিয়া গ্রামের আতর আলী(২৮)। গত ২৭ অক্টোবর রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতের বিজ্ঞ বিচারক উল্লেখিতদের অন্তবর্তী কালীন জামিন বাতিল করে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

জানাগেছে, উল্লেখিতরা কাওছার সরদার হত্যা মামলায় বিজ্ঞ আদালত থেকে জামিনে ছিল। গত ২৭ অক্টোবরও তারা হাজিরা দিয়েছিল। ইতিমধ্যে রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশ ওই মামলায় আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। চার্জশীটে উল্লেখিতদেরও অভিযুক্ত করা হয়েছে। সে কারণে বিজ্ঞ আদালত তাদের জামিন বাতিল করে দেন। এ ছাড়াও ওই দিন জামিনে থাকা অপর আসামী আলমের আইনজীবীর করা সময়ের আবেদন না মঞ্জুর করে বিজ্ঞ আদালত তার জামিন বাতিল পূর্বক ওয়ারেন্টের আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, দয়ালনগর গ্রামের কাওছার সরদারকে ২০১২ সালের ১৫ নভেম্বর বিকেলে জৌকুড়া প্রাইমারী স্কুলের সামনে একদল দুর্বৃত্ত কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করার পর তাকে প্রথমে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে, এরপর সেখান থেকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং সর্বশেষ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০ নভেম্বর সে মৃত্যুবরণ করে।

এ বিষয়ে কাওছার সরদারের পিতা কাশেম আলী সরদার বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানার মামলা নং-২০,তাং-২০/১১/২০১২ ইং, ধারা-১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/১১১ দঃ বিঃ দায়ের করেন। পরবর্তীতে কাওছার সরদার মারা গেলে উল্লেখিত ধারাগুলোর সঙ্গে দন্ড বিধির ৩০২/৩৪ ধারা সংযুক্ত করা হয়। প্রথমে রাজবাড়ী থানার এস.আই গাজী মাহবুবুর রহমান মামলাটি তদন্ত করেন। তার তদন্তকালে তিনি শাখাওয়াত ও মাসুদকে গ্রেফতার করেন এবং গুরুত্বপূর্ণ স্বাক্ষী হিসেবে কামাল শিকদারের জবানবন্দী বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ আইনের ১৬৪ ধারায় রেকর্ড করান। কামালের জবানবন্দীতে হত্যাকান্ডের সাথে আজম, শাখাওয়াত, জুয়েল, মাসুদ, আসলাম, সোহেল প্রমুখের নাম উঠে আসে। পরবর্তীতে গাজী মাহবুবুর রহমান রাজবাড়ী থানা থেকে বদলী হলে এস.আই কামরুল ইসলাম অবশিষ্ট তদন্ত করে সম্প্রতি ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

 

আপডেট : বুধবার অক্টোবর ২৯,২০১৪/ ‌০২:০৯ পিএম/ তামান্না

 

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর