,

পাংশায় ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ : ভ্রাম্যমান আদালতে বর ও কনের অভিভাবককে জরিমানা

News

মোক্তার হোসেন : রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খানের হস্তক্ষেপে গতকাল বুধবার দুপুরে পাংশা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের মৈত্রিডাঙ্গী গ্রামে একটি বাল্য বিয়ে বন্ধ হয়েছে। এ সময় বর ও কনের অভিভাবককে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

জানা গেছে, পারিবারিক সম্মতিতে মৈত্রিডাঙ্গী গ্রামের তমিজ উদ্দিন মন্ডলের ছেলে সিএনজি চালক হালিম মন্ডলের (২৫) সাথে প্রতিবেশী মৃত বিল্লাল হোসেন মন্ডলের মেয়ে পাংশা জর্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী ফাতেমা খাতুন (১৫) সাথে বিয়ের দিন ধার্য ছিলো গতকাল বুধবার বিকেলে। খবর পেয়ে ওইদিন দুপুর আড়াইটার দিকে পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম খান পাংশা থানার এএসআই আহসান হাবীবসহ সঙ্গীয় পুলিশদল সাথে নিয়ে মৈত্রিডাঙ্গী গ্রামন্থ কনের বাড়িতে গিয়ে উভয় পরিবারের অভিভাবকদের সাথে কথা বলেন।

এ সময় ভ্রম্যমান আদালতের মাধ্যমে কনের বাল্য বিয়ে বন্ধসহ বাল্য বিয়ে নিরোধ আইনে বর হালিম মন্ডলের বড় ভাই হারুন অর রশীদেকে ৫হাজার টাকা এবং কনে ফাতেমা খাতুনের দাদা মকসেদ আলী মন্ডলকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

 

 

আপডেট : বৃহস্পতিবার নভেম্বর ০৬,২০১৪/ ০৩:৪০ পিএম/ আশিক

 

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর