রাজবাড়ীর যুবদল নেতা বাবলু হত্যা মামলায় ১৩জনের বিরুদ্ধে চার্জশীট

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ ,১১ নভেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ৩:১০ অপরাহ্ণ ,২ নভেম্বর, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : যুবদল নেতা এসএম সামসুল আলম বাবলু হত্যা মামলায় ১৩জনের বিরুদ্ধে গতকাল ১০ই নভেম্বর রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে রাজবাড়ী সদর থানার পুলিশ। মামলাটির ২য় তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজবাড়ী থানার এস.আই মোঃ জিল্লুর রহমান এ চার্জশীটটি দাখিল করেছেন।

চার্জশীটে অভিযুক্তরা হলেন ঃ বিনোদপুরের মৃত নুরুদ্দোহার পুত্র রাজবাড়ী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মীর এনাম আলী বাচ্চু, ১নং বেড়াডাঙ্গার মোকাম মিয়ার ছেলে সানোয়ার রহমান জকি, কালুখালী উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত জীতেন হাওলাদারের ছেলে লালন হাওলাদার, ১নং বেড়াডাঙ্গার ব্যাংক ছালামের বাড়ী সংলগ্ন জন্মদাতা পিতা আঃ আজিজ খান ও সৎ পিতা সাইফুল ইসলামের ছেলে ফরহাদ হোসেন বাপ্পী, বিনোদপুর লোকসেডের মৃত জামাল মিয়ার ছেলে ইয়াকুব,বিনোদপুরের বাবলু মিয়ার ছেলে রানা, চুন্নু ভুঁইয়ার ছেলে খায়রুল, কালুখালীর হুগলাডাঙ্গীর আকমল বিশ্বাসের ছেলে রশিদ, ১নং বেড়াডাঙ্গার সাত্তারের ছেলে শাহীন, বিনোদপুর ক্যারেজের পিছনের রেলকলোনীর এম.এ সাত্তারের ছেলে উজ্জল, বিনোদপুর হরিসভার মৃত মাখন লাল সেনের ছেলে বিশ্বজিৎ কুমার সেন, বিনোদপুরের ফরহাদ মন্ডলের ছেলে আরিফ মন্ডল এবং আবুল কাশেম কুলির ছেলে আরিফ।

চার্জশীটে বিনোদপুরের মৃত নুরুজ্জোহার ছেলে মীর বাবু (কাউন্সিলর বাচ্চুর ভাই), সালাউদ্দিন কসাইয়ের ছেলে অনিক ও মোনাক্কা শেখকে অব্যাহতি এবং চার্জশীটভুক্ত পলাতক ফরহাদ হোসেন বাপ্পী, রানা ও শাহীনের বিরুদ্ধে হুলিয়াসহ মালামাল ক্রোকের(ডব্লিউপিএন্ডএ) প্রার্থনা জানানো হয়েছে। এ ছাড়াও চার্জশীটে সাংবাদিক(বিটিভির রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি) সানাউল্লাহসহ মোট ১৪জনকে স্বাক্ষী করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, জমিজমা নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে ২০১২ সালের ২৩শে আগষ্ট দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজবাড়ী শহরের বিনোদপুর পুলিশ ফাঁড়ির সন্নিকটে(অনুমান ২শ গজের মধ্যে) বিটিভি’র সাংবাদিক সানাউল্লাহ’র বাড়ীর সামনে রাস্তার উপর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বিএনপি নেতা এস.এম সামসুল আলম বাবলুকে ঘেরাও করে খুব কাছে থেকে এলোপাতারীভাবে গুলি করে হত্যা করে। এ সময় তিনি গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মধ্যে পায়ে হেঁটে শহরের আজাদী ময়দান থেকে পালাগান শুনে বিনোদপুর এতিমখানা সংলগ্ন নিজ বাড়ীতে ফিরছিলেন।

এ হত্যার ঘটনায় নিহত বাবলুর ভাই শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৭জনকে আসামী করে রাজবাড়ী থানায় রাজবাড়ী পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মীর এনাম আলী বাচ্চু, তার ভাই মীর বাবু, খায়রু, আরিফ মন্ডল, অনিক, রানা, আরিফ কুলিসহ অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী ও অস্ত্রধারীদের আসামী করে রাজবাড়ী থানার মামলা নং-৩০, তাং-২৫/৮/২০১২, ধারাঃ ৩৪১/৩০২/৩৪ দঃ বিঃ দায়ের করে।

মামলার পর রাজবাড়ী সদর থানার তৎকালীন সেকেন্ড অফিসার এস.আই ওয়াদুদ আলমকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়। গত ২ জুলাই তিনি কালুখালী থানায় বদলী হয়ে গেলে রাজবাড়ী থানার এস.আই জিল্লুর রহমানকে মামলাটির ২য় তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়।

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার নভেম্বর ১১,২০১৪/ ১১:২৯ এএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 1116 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments