পাংশার মাছপাড়ায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১২:৫১ অপরাহ্ণ ,২ ডিসেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ১২:৫১ অপরাহ্ণ ,২ ডিসেম্বর, ২০১৪
পিকচার

মোক্তার হোসেন : রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার মাছপাড়া ইউপির রামকোল-বাহাদুরপুর গ্রামে গত রোববার গভীর রাতে স্ত্রী রুমা খাতুন (১৮) কে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগে গতকাল সোমবার দুপুরে স্বামী হজরত মোল্লা (৩০) কে  আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, রামকোল-বাহাদুরপুর গ্রামের তোরাব আলী মোল্লার ছেলে হজরত মোল্লার সাথে লালমনিরহাট জেলার আদতমারী থানার রামদেব গ্রামের নুরুজ্জামানের মেয়ে রুমা খাতুনের মোবাইল ফোনে পরিচয় হয়।একপর্যায়ে উভযের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রায় তিন মাস আগে হজরত মোল্লা রুমা খাতুনকে নিয়ে পাবনা জেলায় তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে যায় এবং সেখানে এফিডেভিটের মাধ্যমে রুমাকে বিয়ে করে। পরবর্তীতে তাদের মধ্যে কলহ সৃষ্টি হলে ঘর ভাঙার উপক্রম হয়। এরই একপর্যায়ে তিন দিন আগে রুমা তার মা হালিমা খাতুনের সাথে মাছপাড়ায় স্বামীর বাড়িতে যায়। রোববার গভীর রাতে বসত ঘরের সামনে একটি গাছের সাথে রুমার গলায় রশি দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় বাড়ির লোকজন।

এদিকে স্বামী হজরত মোল্লা গতকাল সোমবার সকালে স্ত্রীর আত্মহত্যার বিষয়ে পাংশা থানায় ইউডি মামলা করে । ইউডি মামলা নং ৫২/১৪। পাংশা থানার এসআই হাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে সঙ্গীয় পুলিশ নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করাকালীন সময়ে স্বামী হজরত মোল্লার অসংলগ্ন কথার কারনে ঘটনার বিষয়ে সন্দেহ হলে হজরত মোল্লাকে আটক করে এবং ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠায়।

এ বিষয়ে পাংশা থানার ওসি মোহাম্মদ আবুল বাশার মিয়া জানান, ধারনা করা হচ্ছে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহের জের ধরে স্ত্রী রুমাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে চতুর স্বামী হজরত মোল্লা মৃতদেহ গলায় রশি দিয়ে গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখে। নিহতের আত্মীয়-স্বজনের এমন অভিযোগ এবং হজরত মোল্লার অসংলগ্ন আচরণের কারনে স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় হজরত মোল্লাকে আটক করা হয়েছে।
সোমবার রাতে এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল বলে জানা গেছে।

 

আপডেট : মঙ্গলবার ডিসেম্বর ২,২০১৪/ ১২:৪৮ পিএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 948 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]