,

তিন সহযোগীসহ শ্রীপুরের টপ বাহিনী প্রধানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

News

স্টাফ রিপোর্টার : ৫০ হাজার টাকা চাঁদার দাবীতে শ্রীপুরের মোল্লা ম্যানশন মার্কেটের স্টীল ব্যবসায়ী হযরত আলীকে কুপিয়ে জখম করার পাশাপাশি তার কাছ থেকে ২২হাজার টাকা কেড়ে নেয়ার অভিযোগে রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুরের ‘টপ বাহিনীর’ প্রধান টপ ওরফে টপ মন্ডল এবং তার ৩ সহযোগীর বিরুদ্ধে গত ২১ ডিসেম্বর রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মামলা সুত্রে প্রকাশ, রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুরের টপ ওরফে টপ মন্ডল চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। স্থানীয়ভাবে সে ‘টপ বাহিনীর প্রধান’ হিসেবেও কুখ্যাত। গত ১৬ ডিসেম্বর রাত ৯টার দিকে অজ্ঞাতনামা ৩ জন সহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে টপ শহরের শ্রীপুরের মোল্লা ম্যানশন মার্কেটের ‘শিমুল স্টীল কিং’ নামীয় স্টীল দোকানের মালিক হযরত আলীর কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। ওই সময় হযরত আলী তার কাছে ওই পরিমান টানা নেই জানালে টপ তার পরিহিত চাদরের ভিতর থেকে ধারালো ছ্যানদা দেখিয়ে প্রকাশ করে, ‘তোকে এক ঘন্টা সময় দিলাম। এর মধ্যে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দিতে না পারলে তোকে জান রেখে যেতে হবে। আমরা পাশেই আছি। যতদ্রুত সম্ভব টাকাটা সংগ্রহ করে দিয়ে দে।’ টপ ও তার সহযোগীরা আড়াল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে হতবিহবল হয়ে পড়া হযরত আলী বিষয়টি মার্কেটের অন্যান্য দোকানীকে জানালে তারা তাকে থানায় অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দেয়। সে অনুযায়ী হযরত আলী তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে রাত পৌনে ১০টার দিকে থানায় যাওয়ার উদ্যোগ নিলে টপ ও তার ৩সহযোগী অকস্মাৎ এসে তাকে এলোপাতারীভাবে কুপিয়ে জখম করে মৃত ভেবে ফেলে রেখে যায় এবং তার পকেটে থাকা ব্যবসায়িক ২২হাজার টাকা নিয়ে যায়। যাওয়ার সময় মার্কেটের অন্যান্য ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে প্রকাশ করে যায় যে, ‘কেউ কিছু দেখেনি কিংবা শোনেনি-শ্রীপুর এলাকায় ব্যবসা করতে হলে তাকে সবাইকে চাঁদা দিতে হবে, অন্যথায় তাদের পরিণতিও হযরত আলীর মতো হবে।’ ঘটনার সময় টপ ও তার ৩সহযোগী ধারালো দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র সজ্জিত থাকায় মার্কেটের কোন দোকানী তাকে রক্ষা করার জন্য এগিয়ে আসার সাহস পায়নি।

টপ ও তার সহযোগীরা চলে যাওয়ার পর মার্কেটের অন্যান্য ব্যবসায়ীরা এগিয়ে এসে হযরত আলীকে উদ্ধার করে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সেখান থেকে ফরিদপুর কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা নিয়ে কিছুটা সুস্থ্য হওয়ার পর হযরত আলীর কাছ থেকে বিস্তারিত শুনে তার স্ত্রী শিউলী বেগম বাদী হয়ে গত ২১ ডিসেম্বর রাজবাড়ীর ১নং ্আমলী আদালতে দন্ড বিধির ৩৮৫/৩৮৬/৩৮৭/৩০৭/৩২৩/৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করলে বিচারক এম.সি (মেডিকেল সার্টিফিকেট) তলবের আদেশ দেয়।

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার ডিসেম্বর ২৩,২০১৪/ ১১:৪৫ এএম/ আশিক

 

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর