রাজবাড়ীতে ইউসিবিএল ব্যাংকের কর্মকর্তা জসিম গুম ও ব্যবসায়ী মনোজ গ্রেফতারের ঘটনায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি : জনমনে নানা প্রশ্ন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৯:১৮ অপরাহ্ণ ,২৬ ডিসেম্বর, ২০১৪ | আপডেট: ৯:২১ অপরাহ্ণ ,২৬ ডিসেম্বর, ২০১৪
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর এলাকা থেকে থেকে গাজীপুরের কালীগঞ্জ ইউনাইটেড কর্মাশিয়াল ব্যাংক লিঃ (ইউসিবিএল) এর ক্যাশ অফিসার জসিম উদ্দিন (৩৮) গুম ও ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বাজারের ব্যবসায়ী মনোজ গ্রেফতারের ঘটনায় শহরে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।

গত ১৭ ডিসেম্বর সকাল সোয়া ৬টার দিকে খানখানাপুর ব্রীজ বা তার আশপাশ এলাকা থেকে ব্যাংক কর্মকর্তা জসিম অপহরন হয়। এরপর দুস্কৃতিকারীরা তার কাছ থেকে নগদ ৪লক্ষ ৬ হাজার ৫শত টাকা ও তার ব্যবহৃত নতুন পালসার মোটর সাইকেল (রাজবাড়ী-১১-০৫-৩৫) নিয়ে তাকে গুম করে।

নিখোঁজ ব্যাংক কর্মকর্তা জসিমের ভাই মাহাবুবুর রহমানের ভাষ্যঃ রাজবাড়ী ইউসিবিএল ব্যাংকে ক্যাশ অফিসার পদে চাকুরী করাকালে বরগুনা জেলার বেতাগী উপজেলার উত্তর বেতাগী গ্রামের হেমায়েত উদ্দিন সিকদারের ছেলে জসিম উদ্দিন (৩৮) এর সাথে শহরের বিনোদপুর গ্রামের শ্যামল কুমার শিকদারের ছেলে ব্যবসায়ী সনজয় কুমার মনোজের বন্ধু’র সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরবর্তীতে জসিম রাজবাড়ী হতে বদলী হয়ে গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ ইউসিবিএল ব্যাংকে ক্যাশ অফিসার পদে চাকুরীতে যোগদান করে। গত ১৪ ডিসেম্বর ব্যাংক কর্মকর্তা জসিম কালীগঞ্জ থেকে নিজ নতুন পালসার মোটর সাইকেলযোগে ব্যক্তিগত কাজে বরিশাল জেলায় আসে। সেখান থেকে সে তার চাচার কাছ থেকে পাওনা বাবদ আড়াই লক্ষ ও তার নিজস্ব ১লক্ষ ৫৬ হাজার মোট ৪লক্ষ ৬ হাজার ৫শত টাকা নিয়ে গত ১৬ ডিসেম্বর কালীগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। ওই দিন বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সে মনোজের সাথে দেখা করার জন্য রাজবাড়ীতে এসে পৌছায় এবং মনোজের সাথে দেখা হওয়ার পর সে তার বাড়ীতে রাত্রী যাপন করে। পর দিন গত ১৭ ডিসেম্বর সকাল সোয়া ৬টার দিকে সে মনোজের বাসা থেকে কালীগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এরপর সে খানখানাপুর ব্রীজ এলাকায় পৌছালে কুয়াশাছন্ন ভোরে ৫/৬জন দুস্কৃতিকারী তার পথরোধ করে। এরপর তারা জসিমকে অপহরন করে অজ্ঞাত স্থানে আটক করে কাছে থাকা নগদ ৪লক্ষ ৬ হাজার ৫শত টাকা ও তার ব্যবহৃত পালসার মোটর সাইকেল (রাজবাড়ী-১১-০৫-৩৫) নিয়ে তাকে গুম করে। এর এক দিন পরেই গত ১৮ ডিসেম্বর মনোজ নিজেই জসিমকে পাওয়া যাচ্ছে না মর্মে রাজবাড়ী থানায় একটি জিডি করে।

তার দাবী, আমার ভাই ব্যাংক কর্মকর্তা জসিম মনোজের বাসায় রাত্রী যাপন করাকালে সে মোবাইলে অন্যান্যদের সাথে যোগাযোগ করে এবং পূর্ব পরিকল্পিতভাবে যোগসাজস করে জসিমকে অপহরনের পর টাকা পয়সা, মোবাইল ও মোটর সাইকেল ছিনিয়ে নেয়াসহ গুম করে। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে গত ২২ ডিসেম্বর রাজবাড়ী থানায় সনজয় শিকদার মনোজসহ অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। রাজবাড়ী থানার মামলা নং-২২, তাং-২২/১২/২০১৪, ধারাঃ ৩৬৪/১১৪দঃবিঃ

রাজবাড়ী থানার এসআই মোঃ নিজাম উদ্দিন জানান, ইউসিবিএল ব্যাংকের ক্যাশ অফিসার জসিম উদ্দিনকে অপহরন করে নগদ টাকা, মোবাইল ও পালসার মোটর সাইকেল ছিনিয়ে নেয়াসহ গুম করার অভিযোগে গত ২২ ডিসেম্বর রাতে শহরের সালমা হোটেল এলাকা থেকে মনোজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর সে ঘটনার দিন রাতে জসিম তার বাসায় ছিল বলে স্বীকার করেছে।

সাধারন মানুষের মতামতঃ ব্যাংক কর্মকর্তা জসিম গুম ও রাজবাড়ী বাজারের ব্যবসায়ী সনজয় কুমার মনোজ গ্রেফতারের ঘটনায় সর্বত্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। তবে অনেকেই এটি সাজানো ঘটনা মনে করছেন। কারণ হিসেবে তারা উল্লেখ্য করেন, জসিম রাজবাড়ী ইউসিবিএল ব্যাংকে ক্যাশ অফিসার থাকাকালে অনেকের কাছ থেকে চাকুরী দেয়ার কথা বলে মোটা অংকের টাকা নিয়েছে। এছাড়াও সে ওই ব্যাংক থেকে লোন নেয়াসহ কয়েকজনের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা ধার নিয়েছে। এসব টাকা হাতিয়ে নেয়ার জন্যই সে এটি পরিকল্পিতভাবে করেছে।

আবার কেউ ভিন্নমত পোষণ করে বলেছেন, ঘটনার দিন জসিম ঠিকই রাজবাড়ীতে আসে। সারাদিন দৌলতদিয়া পতিতালয়ে থাকার পর রাতে সে মনোজের বাসায় আসে এবং রাত্রী যাপন করে। ভোরে সে ওই বাসা থেকে চলে আসে। খানখানাপুরে তার আত্মীয় স্বজন রয়েছে। গুমের ঘটনা যদি সত্যিই ঘটে থাকে তাহলে ওই আত্মীয় স্বজনদের দ্বারাও হতে পারে।

আবার অনেকেই বলেছেন ঘটনা যাই হোক সত্যিটা উদঘাটন হোক। ব্যাংক কর্মকর্তা জসিম জীবিত উদ্ধার হোক এটাই তাদের প্রত্যাশা।

 

আপডেট : শুক্রবার ডিসেম্বর ২৬,২০১৪/ ০৮:৫৮ পিএম/ আশিক


এই নিউজটি 1049 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments