,

বানিবহের বৃচাত্রায় প্রভাবশালীদের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে পাল সম্প্রদায়ের একটি পরিবার : দেখার কেউ নেই

News

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার বানিবহ ইউনিয়নের বৃচাত্রা গ্রামে প্রভাবশালীদের নির্যাতনের শিকার হয়েছে পাল সম্প্রদায়ের একটি পরিবার। একের পর এক নির্যাতনে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে পরিবারটি। শুধু তাই নয় বাড়ী ঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্যও তাদেরকে হুমকি দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে ওই পরবিারের গৃহ পরিচারিকা মায়া রানী পাল (৫৫) বলেন, আমার স্বামী রমেশ চন্দ্র পাল (৬৫) বিগত ৩ বছর ধরে ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে পঙ্গুত্ব বরন করছেন। আমাদের ৫ ছেলে। মেয়ে নেই। মাটির জিনিসপত্র বানিয়ে বাজার ও গ্রামে গ্রামে ঘুড়ে ঘুড়ে বিক্রি করে অর্থ উপার্জনই হচ্ছে আমাদের পরিবারের প্রধান আয়ের উৎস। মাটির জিনিসের প্রতি মানুষের চাহিদা না থাকায় কোন রকমে জীবন যাপন করছি আমরা। অন্যদিকে আমাদের বাড়ীর জায়গা জমি দখল করে নেওয়ার জন্য এলাকার কিছু প্রভাবশালী দুষ্ট চরিত্রের মানুষ আমাদেরকে দীর্ঘদিন ধরে বাড়ী ঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে আসছে। ওই প্রভাবশালীদের কথায় বাড়ী ঘর ছেড়ে না দেওয়ায় তারা একের পর এক হামলা করছে আমাদের উপর।

এরই ধারাবাহিকতায় বিগত ২০১৪ সালের ২ মার্চ রাত আড়াটার দিকে আমার স্বামী রমেশ চন্দ্রের ঘরের দরজা বাইরে তালা দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। এ যাত্রায় তার চিৎকারে ঘরের দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর গত ২৩/১১/২০১৪ তারিখ রাত্র ৩টার দিকে আমাদের টিনের ঘরের চারপাশে জিআই তার জড়িয়ে বৈদ্যুতিক লাইনের সংযোগ দিয়ে শট সার্কিটের মাধ্যমে বাড়ীর সবাইকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। ঘটনার সময় বৈদ্যুতিক তার শরীরের লাগিয়ে দেয়ার জন্য দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকলে তাদের শব্দে ঘুম ভেঙে গেলে তারা পালিয়ে যায়। এরপর গত ৩০/১২/২০১৪ তারিখ রাত সাড়ে ৯টার দিকে ২টি মোটর সাইকেলযোগে ৫/৬জন দুর্বৃত্ত আমাদের বাড়ী ঘরে ইট পাটকেল ও বাশের লাঠি দিয়ে টিনের বেড়াসহ মাটির জিনিসপত্র ভেঙে ক্ষতি করে। এছাড়াও গত ১৫ জানুয়ারী রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ীর সামনে একটি খড়ের পালায় আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। এ সকল ঘটনায় রাজবাড়ী থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

তিনি আরো জানান, প্রভাবশালীরা আমাদের উপর একের এক হামলা করছে। তাদের হামলায় আমরা সবাই এখন চরম নিরাপত্তাহীতায় ভূগছি।

তবে কারা এ ঘটনাগুলো ঘটাচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি ভয়ে তাদের নাম প্রকাশ করতে সাহস পাননি।
এ ব্যাপারে তিনি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

 

আপডেট : মঙ্গলবার জানুয়ারী ২০,২০১৫/ ০১:২৯ পিএম/ আশিক

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর