আরব সাহেব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ ,১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ | আপডেট: ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ ,১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী আরব সাহেব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (১২ ফেব্রয়ারী) বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড:এম.এ খালেক। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাসরিন আক্তার,সহকারী-উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুহাম্মদ আব্দুল কাদের ও বিশিষ্ট শিল্পপতি শাহীন শাহাবুদ্দিন মামুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ্যাড:এম.এ খালেক বলেন, আরব সাহেব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সদর উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এই বিদ্যালয়ে লেখাপড়ার মান অনেক ভালো কিন্তু শিক্ষার্থীর সংখ্যা অনেক কম। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে।

শীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তোমাদের মধ্য থেকেই কেউ ডাক্তার হবে,কেউ ইঞ্জিনিয়ার হবে,কেউ ম্যাজিস্ট্রেট হবে,কেউ পুলিশ অফিসার হবে। সুতরাং তোমাদেরকে লেখাপড়ার দিকে নজর দিতে হবে। একটা কথা মনে রাখবে বর্তমান সমাজে সবচেয়ে খারাপ দিক হচ্ছে মাদক। মাদকের ভয়াল থাবা থেকে তোমাদেরকে দূরে থাকতে হবে।সবাইকে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

বিশিষ্ট আইনজীবি এ্যাড:এম.এ খালেক আরো বলেন, পুঁথিগত বিদ্যাই সব নয়। পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি তোমাদেরকে সাংস্কৃতিক,খেলাধুলা ও ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। চেয়ারম্যান হওয়ার পর আমি সদর উপজেলার প্রায় সবগুলো স্কুলই পরিদর্শন করেছি। পরিদর্শনকালে যখন দেখি ক্লাস ফোর ফাইভের ছাত্র-ছাত্রীরা রাজবাড়ী জেলায় কয়টি উপজেলা বলতে পারে না, নিজের স্কুলের প্রধান শিক্ষকের নাম বলতে পারে না,দেশের প্রধানমন্ত্রীর নাম বলতে পারে না তখন অনেক খারাপ লাগে। তাই পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি তোমাদেরকে সাধারণ জ্ঞান,বাহ্যিক জ্ঞান ও আনুসঙ্গিক জ্ঞান অর্জন করতে হবে। তবেই তোমরা প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারবে।SAM_1463

শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের সমাজ থেকে ধর্মীয় শিক্ষা শেষ হয়ে যাচ্ছে। অনেক স্কুলে গিয়ে দেখেছি মুসলমান ছাত্র-ছাত্রীরা আরবি পড়তে পারে না,সূরা পড়তে পারে না, নামাজ কয় ওয়াক্ত বলতে পারে না। হিন্দু ছাত্র-ছাত্রীরা গীতা পাঠ করতে পারে না। তাই শিক্ষকদেরকে অনুরোধ করে বলছি পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলুন। ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত হলে ছাত্র-ছাত্রীরা খারাপ পথে ধাবিত হবে না এবং মাদকাসক্ত হবে না।

এ্যাড: এম.এ খালেক তার বক্তব্যে আরব সাহেব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনে দেওয়ার কথা ব্যাক্ত করেন।

বক্তব্য শেষে অতিথিবৃন্দ ক্রীড়া ও সংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সৈয়দ মো:ফরিদ ও সঞ্চালনা করেন বরাট ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ হেলাল মাহমুদ।

 

আপডেট : শুক্রবার ফেব্রুয়ারী ১৩,২০১৫/ ১২:২৮ এএম/ তামান্না


এই নিউজটি 849 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments