ডুবে যাওয়া লঞ্চ শনাক্ত : চলছে উদ্ধারের প্রস্তুতি

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:০৩ অপরাহ্ণ ,২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ | আপডেট: ২:০৪ অপরাহ্ণ ,২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫
পিকচার

রাজবাড়ী ডেস্ক: পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি (এমভি মোস্তফা-৩) শনাক্ত করেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

রোববার (২২ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১টার দিকে লঞ্চটি শনাক্ত করে রশি বাঁধা হয়। সেটি উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বিআইডব্লউটিএ-এর ইনল্যান্ড ট্রাক ৮-৩৮৯।

মানিকগঞ্জের ঘিওর ফায়ার সার্ভিস অফিসের ওয়্যার হাউজ ইন্সপেক্টর জিহাদ মিয়া, ডুবে যাওয়া লঞ্চটি ৩৫থেকে ৪০ ফুট গভীরে রয়েছে। লঞ্চের সামনের দিকটা রয়েছে নিচের দিকে।

ডুবে যাওয়া লঞ্চের মাস্টার আফজাল হোসেন জানান, পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়া যাওয়ার পথে পাটুরিয়া ঘাট থেকে এক কিলোমিটার দূরে পণ্যবাহী একটি কার্গো’র ধাক্কায় ডুবে যায় এমভি মোস্তফা-৩। এ ঘটনায় ব্যাপক হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে। অপর এক লঞ্চের সারেং হাবিবুর রহমান বলেন, রোববার বেলা পৌনে ১২টার দিকে এদুর্ঘটনা ঘটে।

ডুবে যাওয়া লঞ্চের উদ্ধার হওয়া যাত্রী গোয়ালন্দ উপজেলা কৃষি অফিসের হেড ক্লার্ক তফসির বাংলানিউজকে জানান, লঞ্চটি ডুবে যাওয়ার সময় তিনিসহ কেবিনের বাইরে থাকা যাত্রীদের অনেকে সাঁতরে অন্য লঞ্চ ও ট্রলারে উঠতে সক্ষম হয়। তবে লঞ্চের ভেতরে থাকা শতাধিক যাত্রী বের হতে পারেনি। এদের মধ্যে অনেকের মৃত্যুর আশঙ্কা করছেন তিনি।

তফসির আরো জানান, মানিকগঞ্জের হরিরামপুর এলাকা থেকে আসা একটি কার্গো লঞ্চটির মাঝখানে ধাক্কা দেয়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লঞ্চটি ডান দিকে উল্টে ডুবে গেছে।

ডুবে যাওয়া লঞ্চের ফল বিক্রেতা রমজান আলীর শ্যালক সাইদুল ইসলাম জানান, তার ভগ্নিপতির কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। রমজানের বাড়ি রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার অন্তার মোড়ে।  (তথ্য সূত্র – বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম)

আপডেট : রবিবার ফেব্রুয়ারী ২২,২০১৫/ ০২:০২ পিএম/ তামান্না


এই নিউজটি 1010 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments