সিঙ্গা নিজাতপুর প্রি-ক্যাডেট স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৪:৪৪ অপরাহ্ণ ,৭ মার্চ, ২০১৫ | আপডেট: ৪:৪৫ অপরাহ্ণ ,৭ মার্চ, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের সিঙ্গা নিজাতপুর প্রি-ক্যাডেট স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শনিবার (৭ মার্চ) সকালে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড:এম.এ খালেক ও দাদশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.লুৎফর রহমান বাচ্চু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিঙ্গা নিজাতপুর প্রি-ক্যাডেট স্কুলের সভাপতি আব্দুল হাকিম মোল্লা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী বলেন, আজকের এই কোমলমতি শিশুরা আগামী দিনের রাষ্ট্রনায়ক। সুতরাং এই কোমলমতি শিশুদের শিক্ষা-দিক্ষার প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে শিশুদেরকে বাহ্যিক জ্ঞানের শিক্ষা দিতে হবে।

শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমরা আজকে থেকে শপথ নেই। আমারা শুধু স্কুলকে সুন্দর করে গড়ে তুলবো না। আমরা শিশুদেরকে সুন্দর করে গড়ে তুলবো। এই প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিশুরা সুন্দর ড্রেস পড়ে স্কুলে আসে যায়। এটা দেখে আমাদের অনেক ভালো লেগেছে। তবে আমাদের আরও ভালো লাগবে যদি এই স্কুলের কোমলমতি শীক্ষার্থীরা রাজবাড়ী জেলার মধ্যে সবচেয়ে ভালো রেজাল্ট করতে পারে। এই কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যেন তাদের শিক্ষা-দিক্ষায় আরো উন্নতি করতে পারে সেদিকে আপনারা সকলেই দৃষ্টি রাখবেন।

পরিষেশে এমপি কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী সিঙ্গা নিজাতপুর প্রি-ক্যাডেট স্কুলে ১টন টিয়ার বরাদ্দ দেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড: এম.এ খালেক বলেন, আমি জানি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের লেখাপড়ার মান অনেক ভালো। ছাত্র-ছাত্রীরা খুব ভালো রেজাল্ট করছে। সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলোকে যে সকল সুযোগ সুবিধা দিয়েছে সেভাবে কিন্ডার গার্টেন স্কুল গুলোকে দেওয়া হয় না। কিন্তু মানসম্মত শিক্ষায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চেয়ে কিন্ডার গার্টেনই ভালো।

তিনি দু:খ প্রকাশ করে বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার পর আমি সদর উপজেলার প্রায় সবকটি প্রাইমারী স্কুল পরিদর্শন করে দেখেছি শিক্ষার মান অনেক খারাপ। অনেক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফোর-ফাইভের শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি এমনকি সেই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নাম পর্যন্ত বলতে পারে না। তাই পুঁথিগত বিদ্যাই সব নয় এর বাইরেও অনেক কিছু শেখার আছে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে অনেক গরীব মানুষের ছেলে-মেয়ে ভালো সঙ্গীত পরিবেশন করে সঙ্গীত শিল্পী হয়েছেন্। ভালো ক্রিকেট খেলে অনেকেই ভালো ক্রিকেটার হয়েছেন। এজন্য পুঁথিগত বিদ্যার পাশাপাশি শিশুদেরকে সাংস্কৃতিক,খেলাধুলা ও ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। যার যেদিকে প্রতিভা তাকে সেদিকে এগিয়ে দিতে হবে।

পরিশেষে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড:এম.এ খালেক সিঙ্গা নিজাতপুর প্রি-ক্যাডেট স্কুলে আগামী ১মাসের মধ্যে ১টি কম্পিউটার প্রদানসহ স্কুলের অবকাঠামো উন্নয়নে সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করেন।

বক্তব্য শেষে অতিথিবৃন্দ রাজবাড়ী কিন্ডার গার্টেন এসোসিয়েশন কতৃক বৃত্তি প্রাপ্ত স্কুলের ৩জন কৃতি শীক্ষার্থীসহ ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে দাদশী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য মো.মোশাররফ হোসেন মলমগীর,বরাট ইন্টার ন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ হেলাল মাহমুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিঙ্গা নিজাতপুর কিন্ডার গার্টেনের সভাপতি আব্দুল হাকিম মোল্লা ও সঞ্চালনা করেন স্কুলের পরিচালক মাওলানা হাফেজ মো. মাসুদ।

 

আপডেট : শনিবার মার্চ ৭,২০১৫/ ০৪:৪৩ পিএম/ আশিক


এই নিউজটি 921 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments