ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ ,২৬ মার্চ, ২০১৫ | আপডেট: ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ ,২৬ মার্চ, ২০১৫
পিকচার

গোয়ালন্দ প্রতিনিধি : ৬০ বছরের বৃদ্ধ রমেজ আলী শেখ। তিনি একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। তাঁর বাড়ি মানিকগঞ্জের শিবালয়ের আলোকদিয়ার চরে। স্ত্রী সাহেলা বেগমের মারা গেছেন প্রায় দেড় বছর আগে। এর পর থেকে নিঃসন্তান রমেজ কাটাচ্ছেন একাকী জীবন। সংসারে আপনজন বলতে তাঁর কেউ নেই। তাই দুবেলা দুমুঠো ভাত খেয়ে বেঁচে থাকার জন্য এ বয়সেও তিনি নিয়মিত বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তিনি ভিক্ষা করে বেড়ান।

ঘটনার দিন গত মঙ্গলবার বিকেলে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ৩ নম্বর ফেরিঘাট পন্টুনের একপাশে ভিক্ষার থালা হাতে নিয়ে বসেছিলেন বৃদ্ধ রমেজ। এমন সময় অজ্ঞাতপরিচয় এক দুর্বৃত্ত এসে তাঁকে বলে, ‘আমি আপনাকে ১০০ টাকার নোট দিচ্ছি। ২০ টাকা ভিক্ষা রেখে আপনি বাকি টাকা আমাকে ফেরত দিন।’ এ সময় ২০ টাকা ভিক্ষা পাওয়ার আশায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী রমেজ সরল বিশ্বাসে ১০০ টাকার নোট ভাঙিয়ে নেওয়ার জন্য ওই দিন ভিক্ষা করে পাওয়া বিভিন্ন নোটের প্রায় ২০০ টাকা তুলে দেন ওই দুর্বৃত্তের হাতে। সঙ্গে সঙ্গে ওই দুর্বৃত্ত যুবক সুযোগ বুঝে তাঁর ওই টাকাগুলো নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। কিছু সময় পর বিষয়টি টের পেয়ে টাকা হারানোর কষ্টে হা-হুতাশ করতে থাকেন রমেজ। এ সময় তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘আমি একজন অন্ধ ভিক্ষুক। আমার কাছ থিকা এইভাবে যে টাকা মাইরা নিছে, তার বিচার করব আল্লায়।’ শেষে ওই দিন সন্ধ্যায় ভিক্ষার শূন্য থালা হাতে নিয়ে ফেরিতে নদী পার হয়ে পাটুরিয়া ঘাটে চলে যান তিনি।

এদিকে দৌলতদিয়া ঘাটসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, দৌলতদিয়া ঘাটে ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাইয়ের এমন ঘটনা নতুন নয়। এলাকার এক শ্রেণির মাদকাসক্ত যুবক মিলে প্রতিনিয়ত এমন বিভিন্ন কাণ্ড ঘটাচ্ছে। বিষয়টি স্থানীয় নৌ পুলিশ ফাঁড়ির লোকজন জানে বলে অভিযোগ করেছে তারা। তবুও এ ব্যাপারে পুলিশ কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

এ ব্যাপারে দৌলতদিয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আক্তার হোসেন বলেন, ‘এমন অভিনব কায়দায় ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। তবে এসব ঘটনায় যারা জড়িত তাদের দ্রুত খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

আপডেট : বৃহস্পতিবার মার্চ ২৬,২০১৫/ ১০:৩৩ এএম/ আশিক

 


এই নিউজটি 905 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments