,

রাজবাড়ীতে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে যুবককে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়নের লক্ষ্মীকোল গ্রামে কুবতর চুরির অভিযোগে বৈদ্যুতিক পিলারের সাথে দুই পা বেঁধে সালাম সরদার (৩০) নামের এক যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানুষিকভাবে নির্যাতন করে হত্যা করেছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। নিহত সালাম লক্ষ্মীকোল গ্রামের মৃত আফছার সরদারের ছেলে।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানায়, সালাম গত ১৬এপ্রিল দিবাগত রাত ১টার দিকে বাজার থেকে বাড়ী ফিরছিল। বাড়ীর নিকটবর্তী নিমাইয়ের দোকানের মোড় নামক স্থানে পৌছালে পূর্ব শক্রতার জেরে পরিকল্পিতভাবে একই এলাকার আজমত মল্লিক ওরফে মইল্যা ও তার ছেলে বুলবুল, আলিম, সোহান, ভাতিজা সম্রাট, ভাই ওহাব মল্লিক, প্রতিবেশী সিরাজ ও আহম্মদসহ অজ্ঞাত কয়েকজন তাকে ধরে বাড়ীর ভিতর নিয়ে মুখের মধ্যে কাপড় ঠুকিয়ে বেদমভাবে মারপিট করে। এরপর তারা মইল্যা’র বাড়ীর সামনে একটি বৈদ্যুতিক পিলারের সাথে দুই পা বেঁধে শরীরের কয়েকটি স্থানে পেরেক ঠুকিয়ে সালামকে অমানুষিকভাবে নির্যাতনের পর সেখানেই বেঁধে রাখে। ১৭এপ্রিল দিনের আলো ফোটার সাথে সাথে আশেপাশের লোকজন বৈদ্যুতিক পিলারের সাথে পা বাঁধা অবস্থায় সালামকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে হাসপাতালে নিয়ে যেতে চাইলে উল্লেখিতরা তাদেরকে বাধা দেয়। প্রভাবশালীদের বাধার মুখে গুরুতরভাবে আহত সালামকে আর কেউ উদ্ধার করতে সাহস পায়নি। ফলে সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে বৈদ্যুতিক পিলারের সাথে পা বাধা অবস্থায় সালাম মারা যায়। মারা যাওয়ার পর তারা (সালামের পরিবার) খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন। এরপর সুযোগ বুঝে উল্লেখিতরা এলাকা থেকে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় লোকজন জানায়, সালাম সরদার মইল্যা মল্লিকের বাড়ীতে কবুতর চুরি করতে গিয়েছিল। এ সময় উল্লেখিতরা তাকে ধরে ফেলে বেদমভাবে মারপিট করে। এরপর তারা সালামকে তাদের বাড়ীর সামনে একটি বৈদ্যুতিক পিলারের সাথে দুই পা বেধে অমানুষিকভাবে নির্যাতন করে। সকালে স্থানীয়দের মধ্যে কেউ কেউ সালামকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে চাইলে উল্লেখিতরা বাধা দেয়। ফলে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে সালাম মারা যায়।

এদিকে সালামের মৃত্যুর খবর শুনে তার দুই শিশু সন্তানসহ পরিবারের লোকজনের আহাজারী পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে। খবর পেয়ে সকাল ৮টার দিকে রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমেদ, সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ রবিউল ইসলাম ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করে। ঘটনার পর অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পলাতক রয়েছে।

অপরদিকে, ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নেয়ার জন্য অভিযুক্ত প্রভাবশালীদের লোকজন অপপ্রচারসহ বিভিন্ন মহলে ধর্ণা দিচ্ছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় উল্লেখিত প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর