,

সর্বশেষ :
গোয়ালন্দে কমিটি দেয়ায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে শোকজ রাজবাড়ীতে নতুন পুলিশ সুপার হিসেবে আসছেন আসমা সিদ্দিকা মিলি রাজবাড়ীর বসন্তপুরে তরুণী ধর্ষণকে কেন্দ্র করে পুলিশের তৎপরতা বৃদ্ধি রাজবাড়ীতে ৭ বখাটে মিলে গণর্ধষণ করে সেই তরুণীকে রাজবাড়ীতে তরুণীকে গণধর্ষণের চেষ্টা, আটক ৩ রাজবাড়ীতে সিগারেট না দেওয়ায় প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিতের অভিযোগ পাংশায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ৪ লাখ টাকার হেরোইনসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক রাজবাড়ীতে কাজী শান্তনু’র নেতৃত্বে ছাত্রলীগের মাতৃভাষা দিবস পালন শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে এসে শ্লীলতাহানির শিকার স্কুলছাত্রী

পাংশায় সোবাহান হত্যা মামলার মূল হোতা গ্রেফতার

News

মোক্তার হোসেন : রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কশবামাজাইল ইউপির নটাভাঙ্গা গ্রামের সৌদি প্রবাসী আব্দুল মালেক খানের ছেলে সোবাহান খান (১৭) কে গলাকেটে এবং বাম চোখ উৎপাটন করে নির্মমভাবে হত্যাকান্ডের ১৮দিনের মাথায় হত্যার রহস্য উদঘাটনসহ হত্যাকান্ডের মূল হোতা সুমন মন্ডল (১৮)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (২০ মে) বিকেলে নটাভাঙ্গা এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় নিহত সোবাহানের ব্যবহৃত বাইসাইকেল এবং হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত নিড়ানি কাচি উদ্ধার করা হয়। ধৃত সুমন একই গ্রামের সদর মন্ডলের ছেলে ও নিহত সোবাহান খানের বন্ধু।

জানাগেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বুধবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে পাংশা থানার ওসি আবু শামা মোঃ ইকবাল হায়াতের নেতৃত্বে এস.আই তরফদার হাবিবুর রহমান, এস.আই খান বেলাল হোসেন, এসআই কামাল হোসেন ভূঁইয়া ও এসআই আবু সায়েমসহ সঙ্গীয় পুলিশদল নটাভাঙ্গা এলাকায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে সুজন ওরফে সুমনকে গ্রেফতার করেন এবং তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক ঘটনাস্থলের অদূরে একটি ডোবা থেকে নিহত সোবাহান খানের ব্যবহৃত বাইসাইকেল ও জনৈক টুকুর বাড়ীর নিড়ানি কাচি উদ্ধার করা হয়।

পাংশা থানার ওসি আবু শামা মোঃ ইকবাল হায়াত জানান, নটাভাঙ্গা গ্রামের সৌদি প্রবাসী আব্দুল মালেক খানের ছেলে সোবাহান খানকে পরিকল্পিতভাবে সুমন ও আতিয়ারসহ ৪জন মিলে গত ২রা মে রাতে নটাভাঙ্গা গ্রামের একটি ডিপটিউবলের পাশে মাঠের মধ্যে প্রথমে গলায় রশি টেনে এবং পরবর্তীতে নিড়ানি কাচি দিয়ে জবাই ও বাম চোখ উৎপাটন করে নির্মমভাবে হত্যা করে নিকটস্থ কশবামাজাইল মল্লিকপাড়া গ্রামের রফিক মিয়ার পরিত্যক্ত ভিটাবাড়ির একটি গাছের নীচে লাশ ফেলে রেখে যায়। যাওয়ার সময় হত্যাকারীদল সোবাহান খানের ব্যবহৃত বাইসাইকেল নিকটস্থ একটি ডোবায় পানির মধ্যে ফেলে রাখে এবং সোবাহানের ব্যবহৃত দুটি মোবাইল ফোনসেট সুমন ও অন্যরা সোবাহানের নিকটে থাকা প্রায় ৩০হাজার টাকা নিয়ে যে যার মত পালিয়ে যায়।

পরদিন সকালে স্থানীয় লোকজন কশবামাজাইল মল্লিকপাড়া গ্রামের রফিক মিয়ার পরিত্যক্ত ভিটাবাড়ীর একটি গাছের নীচে লাশ দেখে থানা পুলিশকে খবর দেয়। লাশের খবর ছড়িয়ে পড়লে বহু লোকজন ঘটনাস্থলে যায় এবং সেখান থেকেই সোবাহানের লাশ সনাক্ত করেন তার পরিবার। এ ঘটনায় নিহত যুবক সোবাহান খানের চাচা আরিফ খান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে পাংশা থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর