,

দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে যুবতী উদ্ধার

গোয়ালন্দ প্রতিনিধি : ভাল কাজ দেয়ার কথা বলে সাতক্ষীরা থেকে অসহায় এক যুবতী কন্যাকে ফুসলিয়ে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে নিয়ে আসে আব্দুল ওরফে আবুল নামের এক দালাল। পরে ওই পল্লীর প্রভাবশালী বাড়িওয়ালী রূপা আক্তার মেয়েটিকে নিজ ঘরে আটকে রেখে জোর করে তাকে যৌন ব্যবসায় নামায়। এ খবর পেয়ে শনিবার (২০ মে) রাতে যৌনপল্লী থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উদ্ধারকৃত ওই যুবতীর (২০) বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়া থানা এলাকায়। তার বাবা একজন গরীব দিনমজুর। গত শুক্রবার বিকেলে ভাল বেতনে কাজ দেয়ার কথা বলে আব্দুল ওরফে আবুল সাতক্ষীরা থেকে ওই মেয়েটিকে ফুসলিয়ে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে এনে বাড়িওয়ালী রূপার হাতে তুলে দেয়।এ সময় বিষয়টি বুঝতে পেরে মেয়েটি সাতক্ষীরায় তার নিজ বাড়িতে ফিরে যেতে চায়। বাড়িওয়ালী রূপা ওই রাত থেকে মেয়েটিকে ঘরের ভেতরে আটকে রেখে তাকে দিয়ে জোর করে যৌন ব্যবসার কাজ চালাতে থাকে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পরদিন শনিবার সন্ধ্যায় দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় পল্লীর বাড়িওয়ালী রূপা আক্তারের ঘর থেকে ওই যুবতীকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত বাড়িওয়ালী রূপা আক্তার ও দালাল আব্দুল ওরফে আবুলের বিরুদ্ধে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় একটি মামলা হয়েছে। তবে তাদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে যৌনপল্লী এলাকার এক দোকানদার বলেন, এই পল্লীর প্রভাবশালী বিভিন্ন বাড়িওয়ালী দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দালালের মাধ্যমে অসহায় মেয়েদের ফুঁসলিয়ে এই যৌনপল্লীতে নিয়ে আসে। বিষয়টি স্থানীয় থানা পুলিশসহ অনেকেই জানেন। তবে বিভিন্ন সময়ে পল্লীর বিভিন্ন বাড়িওয়ালীর বাড়ি থেকে অনেক মেয়েকে পুলিশ উদ্ধার করলেও অজ্ঞাত কারণে সংশ্লিষ্ট বাড়িওয়ালীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে যায়।

উদ্ধারকৃত যুবতী রবিবার (২১ মে) সকালে পুলিশ ও সাংবাদিকদের বলেন, ভাল কাজ দেয়ার কথা বলে দালাল আব্দুল ওরফে আবুল আমাকে ফুসলিয়ে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে নিয়ে এসেছিল। পরে রূপা বাড়িওয়ালী জোর করে আমাকে খারাপ কাজে নামায়। তবে আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দঘাট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নাজমুল হুদা বলেন, বাড়িওয়ালী রূপা আক্তার ও দালাল আব্দুল ওরফে আবুল পলাতক থাকায় তাদের কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর