গাছের প্রতি ভালবাসা!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৬:২২ অপরাহ্ণ ,৭ জুন, ২০১৫ | আপডেট: ৯:৫৬ অপরাহ্ণ ,৭ জুন, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : গাছটির নিচে বসে প্রকৃতির শীতল ছায়ায় বিশ্রাম নিতেন নানান শ্রেণী পেশার মানুষ। সেইসাথে এলাকার সৌন্দর্য বর্ধনেও ব্যাপক ভূমিকা পালন করতো গাছটি । এ কারনে গাছটির প্রতি মানুষের ভালোবাসাও অতুলনীয়। আর এ ভালোবাসার প্রমান মেলে গাছটিকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করার অক্লান্ত প্রচেষ্টা দেখে। গাছটিকে বাঁচাতে কেউ ঢালছে পানি, কেউ দিচ্ছে সার, আবার কেউ কু-নজর কাটাতে গাছে বেঁধে দিয়েছে জুতা, স্যান্ডেল, ঝাড়ু, বোতল ইত্যাদি।

গাছের প্রতি এমনই বিস্ময়কর এক ভালোবাসার উদাহরণ চোখে পড়েছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজার রেলস্টেশন চত্বরে।

জানাগেছে, গোয়ালন্দ উপজেলার প্রকৃতিপ্রেমী স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল ছাত্র সামাজিক সংগঠন একজ জাগরণে প্রতিষ্ঠা করে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় তারা গোয়ালন্দ পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়ক, বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৪ বছর আগে ৩ হাজার কৃষ্ণচুড়া গাছ রোপন করে। ইতিমধ্যে বেশির ভাগ গাছে ফুল আসায় এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সাথে তীব্র গরমে নানান শ্রেণীপেশার মানুষ ওইসকল গাছের নিচে ভীর করছেন প্রকৃতির একটু শীতল ছায়ার জন্য। কিন্তু এরমধ্যে গোয়ালন্দ বাজার রেলস্টেশন চত্ত্বরে ভ্যানপট্টির একটি কৃষ্ণচূড়া গাছ অজ্ঞাত কারনে পাতা হলুদ হয়ে মরে যাচ্ছে। মরে যাওয়ার প্রকৃত কারণ জানা না গেলেও গাছটিকে বাঁচাতে প্রানপন চেষ্টা চালাচ্ছে একজের কর্মীসহ উপকারভোগীরা । গাছটিকে বাঁচাতে কেউ ঢালছে পানি, কেউ দিচ্ছে সার, আবার কেউ কু-নজর কাটাতে গাছে বেঁধে দিয়েছে জুতা, স্যান্ডেল, ঝাড়ু, বোতল ইত্যাদি।

একজ জাগরণের আহবায়ক সুজন সরওয়ার বলেন, গাছ ও মানুষ একে অপরে পরিপূরক। মৃত্যুর হাত থেকে গাছটিকে বাঁচাতে মানুষের এ অক্লান্ত প্রচেষ্টা আমাদের এ ধরনের কাজে অনুপ্রানিত করবে।

 

 


এই নিউজটি 834 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]