রাজবাড়ীতে তিন নারী এনজিও কর্মীকে উলঙ্গ করে ভিডিও ধারণ : থানায় মামলা

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৪:০৬ অপরাহ্ণ ,১০ আগস্ট, ২০১৫ | আপডেট: ৫:০১ অপরাহ্ণ ,১০ আগস্ট, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলাদীপুর জুট মিলের নারী শ্রমিককে গণধর্ষণ ও ধর্ষণের দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও ধারণের পর এবার ৩জন নারী এনজিও কর্মীর উলঙ্গ দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও করার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় গত ৭ই আগস্ট রাজবাড়ী থানায় ৪জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩) এর ১০ তৎসহ পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইন ২০০২ এর ৮ (১) ধারায় মামলা হয়েছে। তবে কেউ গ্রেফতার হয়নি।

জানাগেছে, ওই ৩জন নারী এনজিও কর্মী রাজবাড়ী শহরের ১নং বেড়াডাঙ্গায় সেভ দ্যা চিলড্রেন এনজিওতে চাকুরী করতেন। বাড়ী থেকে আসা যাওয়ায় কষ্টসাধ্য ও ব্যয় বহুল বিধায় তারা কম টাকায় ভাড়া বাসা খুঁজছিল। এক পর্যায়ে শহরের শ্রীপুর এলাকার আক্কাছ নামের এক রিক্সাওয়ালা তাদেরকে কম টাকায় বাসা ভাড়া করে দিবেন বলে জানায়। আক্কাছের শ্রীপুরে একটি বাড়ী রয়েছে। গত ৬ই আগস্ট বিকেল ৪টার দিকে ওই ৩জন নারী এনজিও কর্মীদের মধ্যে একজন আক্কাছের বাসায় যায় এবং তাকে না পেয়ে ফিরে আসে। এরপর আক্কাছ মোবাইলে তাদেরকে বাসা দেখে যেতে বললে তারা ওই দিন সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই বাসায় যায় এবং আক্কাছের সাথে কথা বলতে বলতে রুমের ভিতর যায়। এ সময় ৪ যুবক ওই রুমে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে দেয় এবং ওই ৩ নারী এনজিও কর্মীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। এরপর তারা জোর পূর্বক আক্কাছসহ ওই ৩ নারীকে উলঙ্গ করে ফেলে এবং সেই দৃশ্য বড় আকৃতির মোবাইলে ভিডিও করে। এ সময় তারা চিৎকার দিলে ওই যুবকরা পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই নারী এনজিও কর্মীদের মধ্যে একজন বাদী হয়ে রাজবাড়ী থানায় মামলাটি দায়ের করে। রাজবাড়ী থানার মামলা নং-১০। মামলার আসামীরা হলো, শ্রীপুর গ্রামের কালাম (৩০), ধলা (৩৫), মাসুদ (২৫) ও বছির (২৬)।

এ খবর লেখা পর্যন্ত মামলার কোন আসামী গ্রেফতার এবং মোবইলে করা ভিডিও উদ্ধার হয়নি।

 


এই নিউজটি 2645 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]