কৃষক রাজ্জাকের হত্যকারীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ ,২৩ আগস্ট, ২০১৫ | আপডেট: ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ ,২৩ আগস্ট, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নের বড় রঘুনাথপুর গ্রামের কৃষক রাজ্জাক সেখ (৪৫) এর হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

শনিবার (২২ আগস্ট) সকালে নিহত রাজ্জাকের বাড়ী সংলগ্ন রঘুনাথপুর বাজারে এলাকার ৫শতাধিক নারী-পুরুষের উপস্থিতে এ কর্মসূচী পালিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবী করে বক্তব্য রাখেন নিহত রাজ্জাকের মা তছিরন বেগম, ভাই রোকন উদ্দিন সেক ও স্থানীয় যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক।

উল্লেখ্য, বড় রঘুনাথপুর গ্রামের রাজ্জাক সেখের স্ত্রী ছালমা বেগম একই গ্রামের রশিদ সেখ ওরফে মনিরের ছেলে শাহিন সেখের সাথে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে উঠে। দীর্ঘ দিন ধরে তারা দৈহিক মেলামেশা করে আসছিল। তাদের এ সম্পর্ক রাজ্জাক টের পেয়ে শাহিনকে ওই বাড়ীতে আসতে নিষেধ করে। এতে ছালমা ও পরকীয়া প্রেমিক শাহিন তাকে হত্যা করার ষড়যন্ত্র করতে থাকে। গত ১৯ জুলাই ঈদের পর দিন রাত ৯টার দিকে রাজ্জাক তার বাড়ীর পাশে হরিপদ চৌকিদারের দোকানে বসে টেলিভিশন দেখাকালে বিদ্যুৎ চলে যাওয়ায় সে বাড়ীতে চলে আসে। বাড়ীতে এসে স্ত্রীর সাথে শাহিনের দৈহিক মেলামেশা দেখতে পেয়ে প্রতিবাদ করলে স্ত্রী ছালমা ও পরকীয়া প্রেমিক শাহিন তার অন্ডোকোষ চেপে ধরে গলিয়ে ফেলে। এতে তার মুখ দিয়ে গুগলা বের হয় এবং পায়খানা প্রসাব করে ফেলে। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পরেই রাজ্জাক মারা যায়। এরপর অবস্থা বেগতিক দেখে তারা রাজ্জাককে তড়িঘরি করে ফরিদপুর হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং হার্ট এর্টাক করে মারা গেছে বলে প্রচার করে। পরদিন সকালে বাড়ীর পাশে রাজ্জাককে দাফন করা হয়।

এলাকাবাসী জানায়, রাজ্জাকের স্ত্রী ছালমা ও শাহিনের দীর্ঘ দিন দৈহিক সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে একাধিকবার শালিসও করা হয়। কিন্তু তাদের সম্পর্ক বজায় থাকে। ঘটনার দিন তাদের অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় রাজ্জাককে অন্ডোকোষ চেপে ধরে গলিয়ে হত্যা করা হয়। এ ব্যাপারে রাজবাড়ী থানার এক এসআইকে মোবাইলে জানানো হলেও তিনি ঘটনাস্থলে যাননি। পরে তড়িঘড়ি করে রাজ্জাককে দাফন করা হয়।

এ ঘটনার ২২দিন পর গত ১০ আগস্ট নিহতের বড় ভাই শাজাহান সেখ বাদী হয়ে বিজ্ঞ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১নং আমলী আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করলে আদালতের নির্দেশে গত ১২ আগস্ট মামলাটি থানায় রেকর্ড হয়। মামলায় রাজ্জাকের স্ত্রী ছালমা বেগম (৩০) ও তার পরকীয়া প্রেমিক শাহিন সেক (২৮)কে আসামী করা হয়। রাজবাড়ী থানার মামলা নং-১৩। ধারাঃ ৩০২/৩৪দঃবি।

রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা রেকর্ডের পর মৃত্যুর ২৫ দিন পর গত ১৩ আগস্ট বিকেলে ময়না তদন্তের জন্য কবর থেকে রাজ্জাকের লাশ উত্তোলন করা হয়।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার কোন আসামী গ্রেফতার হয়নি।

 


এই নিউজটি 559 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments