টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রাজবাড়ীর নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধা নিবেদন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৫৩ পূর্বাহ্ণ ,২৩ আগস্ট, ২০১৫ | আপডেট: ১০:৫৩ পূর্বাহ্ণ ,২৩ আগস্ট, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি জিয়ারত করাসহ শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ করেছেন রাজবাড়ী আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (২২ আগস্ট) সকালে রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলীর নেতৃত্বে নেতৃবৃন্দ রাজবাড়ী থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। সকাল ১০টার দিকে সংসদ সদস্যের গাড়ীবহর ফরিদপুরের নূরু মিয়া বাইপাস সড়কের পিয়ারপুর এলাকায় পৌছালে একটি ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে স্থানীয়দের হামলায় কমপক্ষে ২০জন আহত হন। এ সময় বহরের চারটি গাড়ী ভাংচুর করা হয়।

জানাগেছে, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী ২০টি গাড়ীর বহর নিয়ে গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া বঙ্গবন্ধুর মাজারে যাচ্ছিলেন। বহরে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কামরুন্নহার চৌধুরী লাভলী, কাজী কেরামত আলীর সহধর্মিনী রেবেকা সুলতানা সাজু, গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান, দলীয় নেতাকর্মী ও গোয়ালন্দ কামরুল ইসলাম কলেজের শিক্ষক-কর্মচারী ছিলেন। পথে পিয়ারপুর গোডাউনের কাছে একটি ট্রাকের সঙ্গে বহরের একটি বাসের মৃদু সংর্ঘষ হয়। এ সময় গাড়ী বহরের লোকজন ট্রাকটির ওপর হামলা চালায়। পরে স্থানীয়রা গাড়ী বহরের ওপর হামলা চালিয়ে চারটি গাড়ী ভাংচুর করে। এতে গাড়ী বহরে থাকা কমপক্ষে ২০জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে কয়েকজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিলেও ১জনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

আহতদের মধ্যে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীই বেশী ছিলো। ঘটনার পরপর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন নুরু প্রামানিক, গোয়ালন্দ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা রব্বানী, আজিজুল ইসলাম ও আব্দুল আওয়াল।

অন্য আহতরা হলেন ঃ সুলতান খান, বকুল সেখ, রবিউল আলম, ইউনুস মোল্লা, ইদ্রিস আলী, মান্নান, লাভলু, শাহিন, শহীদ আল সাফা ও রস্তম আলী। এরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে যান।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার(এএসপি) মোঃ আমিনুজ্জামান জানান, ঘটনাটি জানার পর পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এমপির গাড়ি বহরকে নিরাপদে গোপালগঞ্জের দিকে পাঠানো হয়েছে।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় দুইটি ট্রাক আটক করা হয়েছে। হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে স্থানীয় ৩জনকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে গাড়ী বহরে হামলার পর স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা ঘটনাস্থলে গিয়ে রাজবাড়ী জেলা নেতাদের সাথে কথা বলেন। স্থানীয় কৈজুরী আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক মোল্যা বলেন, যে ঘটনাটি ঘটেছে তা ভুল বোঝাবুঝি।

এ ঘটনাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে অভিহিত করে রাজবাড়ী-১ আসনের আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী সাংবাদিকদের জানান, আমরা গাড়ী বহর নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর মাজারে যাচ্ছিলাম। পথিমধ্যে তুচ্ছ একটি দুর্ঘটনা নিয়ে যা হয়েছে তা ন্যাক্কারজনক।

পরে নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর মাজারে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পনের পর ফাতেহা পাঠ করে জিয়ারত ও মোনাজাত করেন। সন্ধ্যার পর নেতৃবৃন্দ রাজবাড়ীতে ফিরে আসেন।

 


এই নিউজটি 807 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments