গোয়ালন্দের বন্যার্তদের মাঝে জেলা প্রশাসকের ত্রাণ বিতরণ

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:২১ অপরাহ্ণ ,২৬ আগস্ট, ২০১৫ | আপডেট: ২:২১ অপরাহ্ণ ,২৬ আগস্ট, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টোর : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার বন্যা কবলিত দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউনিয়নে পদ্মা নদীর চর এলাকার বিভিন্ন গ্রামের পানিবন্দী ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী এবং নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান ।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) সকাল ১০টায় দৌলতদিয়ার ৩নং ফেরী ঘাট থেকে স্প্রীডবোট যোগে জেলা প্রশাসক দৌলতদিয়া ও দেবগ্রাম ইউপির বিভিন্ন বন্যা কবলিত চর অঞ্চলের গ্রামগুলোর দুই শত পরিবারকে ১০ কেজি করে মোট ২ মেঃ টন জি.আর চাল এবং নগদ ৫০০ টাকা করে ৫০হাজার টাকা বিতরণ করেন।

ত্রাণ বিতরনকালে জেলা প্রশাসকের সাথে গোয়লান্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবিএম নুরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ ঘোষ, উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম মাহবুবুর রাব্বানী, দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী মোঃ নুরুল ইসলাম মন্ডল, দেবগ্রাম ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আতর আলী সরদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে গোয়ালন্দের কাছে পদ্মা নদীর পানি দ্রুত বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দৌলতদিয়ার কাছে পদ্মার পানি ১৫ সেঃ মিঃ বৃদ্ধি পেয়ে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বর্তমানে বিপদসীমার ২৫ সেঃ মিঃ উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

পানি বেড়ে যাওয়ায় গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নে ৩টি গ্রামে ৩শত জন, দেবগ্রাম ইউনিয়নে ৫টি গ্রামে ৫শত জন, ছোট ভাকলা ইউনিয়নে ৫টি গ্রামে ৩শত জন এবং উজানচর ইউনিয়নে ১৫টি গ্রামে ৪শত ৫০জন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। বেশ কিছু এলাকার ফসল ডুবে গেছে। দৌলতদিয়া ৩নং ফেরী ঘাট এলাকা থেকে পূর্বাঞ্চলে আক্কাস আলী উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত প্রায় ৩কিলোমিটার এলাকার বাঁধে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খান পদ্মার ভাঙ্গনের সম্মুখীন ৩নং ফেরী ঘাট এলাকার বাঁধ পরিদর্শন করেন এবং তা রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিবেন বলে আশ্বাস দেন।

 

 


এই নিউজটি 562 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments