বালিয়াকান্দিতে বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে ২ হাজার একর ফসলী জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:০৭ অপরাহ্ণ ,৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ | আপডেট: ২:০৭ অপরাহ্ণ ,৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : ভরা বর্ষা মৌসুমে স্লুইচ গেটের দরজা খুলে না দেয়ায় বৃষ্টির পানিতে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের বিলবুড়ী ও যশাই বিলের প্রায় ২ হাজার একর ফসলী জমির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিগত ৪/৫ বছর ধরে এ সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় ওই অঞ্চলের কয়েক হাজার কৃষক পরিবার বিপাকে পড়েছে। তাদের দাবী সঠিক সময়ে এ অঞ্চলের দুটি স্লুইচ গেটের দরজা খুলে না দেয়ায় এ পরিস্থিতি সৃষ্টি হচ্ছে।

ইসলামপুর ইউনিয়নের তেনাই গ্রামের কৃষক শাহাবুদ্দিন শেখ, মোক্তার শেখ, ইব্রাহিম মোল্লা, জলিল শেখ ও আব্দুর রশিদ জানান, ইসলামপুর ইউনিয়নের প্রাক্তন চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান বিলবুড়ী বিলের জলাবদ্ধতা দুরীকরনের লক্ষ্যে খাল খননের প্রকল্প তৈরী করলে তৎকালীন সংসদ সদস্য মরহুম ডাঃ একেএম আসজাদ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেন। এরপর থেকে বিলবুড়ী বিলের পানি ওই খাল দিয়ে দিয়ারা ব্রীজ হয়ে বের হয়ে যেত। ৬/৭ বছর আগে দিয়ারা ব্রীজে স্লুইচ গেট তৈরী করা হয়। এর দুই এক বছর পর থেকেই কিছু সুবিধাবাদী পরিবারের জন্য দিয়ারা স্লুইচ গেটের দরজা ভরা বর্ষা মৌসুমে বন্ধ রাখা হয়। আর এতেই বিলবুড়ী বিলের পানি বের হতে না পেরে জলাবদ্ধা সৃষ্টি হয়। এ পরিস্থিতি আরো ভয়াবহভাবে সৃষ্টি হয় এ বছরে। কারণ এ খালটি বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ২০১৩-১৪ অর্থ বছরে পুনঃ খনন করার পর ২০১৫ সালে বিলবুড়ী বিলের উত্তর পশ্চিম পাশের যশাই বিলের একটি খাল খনন করে বিল বুড়ীর সাথে সংযোগ করে দেন। এছাড়াও যশাই বিলের পানি বিল বুড়ীতে যাওয়ার পথে তেনাই মৌজার সেনবাড়ী স্লুইচ গেট নির্মান করেন। এ স্লুইচ গেটের দরজাও বর্ষা মৌসুমে বন্ধ রাখায় যশাই বিল ও বিলবুড়ী বিল বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যায়। ফলে এ দুটি বিলের প্রায় ২ হাজার ফসলী জমি পানির নিচে তলিয়ে ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়।

ওই অঞ্চলের কৃষকদের দাবী উল্লেখিত স্লুইচ গেট দুটির চাবি থাকে অন্য গ্রামের ক্ষমতাশীলদের হাতে। তারা সঠিক সময়ে স্লুইচ গেটের দরজা না খোলায় বিল দুটির আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের কৃষক মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

এ সমস্যা নিরসনের জন্য এ অঞ্চলের কৃষকরা জেলা প্রশাসকের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেন।

 

 

 


এই নিউজটি 595 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments