কেয়ার মুখে হাসি, চোখে স্বপ্নের ঝিলিক

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ ,১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ | আপডেট: ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ ,১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
পিকচার

রাজবাড়ী ডেস্ক : রাজবাড়ী সরকারী কলেজের ম্যানেজমেন্ট এর ছাত্রী কেয়ার মুখে হাসি ফুটেছে। একটু একটু করে ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখাও শুরু করেছে সে। স্বামী পারভেজ খানকে বলেছে, ‘তোমার কি মনে হয় আমি সারাজীবন বাপের বাড়ি থাকব? আরে, আমি তো শ্বশুর বাড়ি যাব।’

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পারভেজ খান প্রথম আলো কার্যালয়ে বসে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন। তখন পারভেজের চোখেও ছিল স্বপ্নের ঝিলিক। স্ত্রী কেয়া খাতুনকে ভারতের মুম্বাই রেখে এসেছেন। ওখানকার টাটা মেমোরিয়াল ক্যানসার হাসপাতালে কেয়ার চিকিৎসা চলছে। সঙ্গে আছে কেয়ার বড় ভাই।

পারভেজ বাংলাদেশে এসেছেন ৩৫ তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা দিতে। তেমনভাবে পড়াশোনা করতে না পারলেও পরীক্ষা ভালোই হয়েছে বলে জানালেন পারভেজ। কেয়াকে দেখভালের জন্য পারভেজ তাঁর খালাকে নিয়ে যেতে এসেছেন। দুই একদিনের মধ্যেই তাঁরা চলে যাবেন।

গত ২৯ জুলাই শরীরে ব্লাড ক্যানসার (এএমএল) বাসা বাঁধা কেয়াকে নিয়ে পারভেজ ভারতের উদ্দেশে রওনা দেন। মুম্বাইতে একটি বাসা ভাড়া নিয়েছেন। বাসায় থেকেই হাসপাতালে যাওয়া আসার মাধ্যমে চলছে চিকিৎসা। এ পর্যন্ত সেখানে থাকা, কেয়ার দুইটি কেমোথেরাপির পেছনে খরচ হয়েছে ১০ লাখ টাকা।

সামাজ