রাজবাড়ীতে পুলিশ সুপার কাপ যুব কাবাডি টুর্নামেন্ট শুরু

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:২১ অপরাহ্ণ ,৪ অক্টোবর, ২০১৫ | আপডেট: ২:২১ অপরাহ্ণ ,৪ অক্টোবর, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : “যুবরাই গড়বে দেশ, মাদকমুক্ত বাংলাদেশ”-এ প্রত্যয় নিয়ে রাজবাড়ী শহরের বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আব্দুল আজিজ খুশি রেলওয়ে মাঠে জেলা পুলিশ ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে বিপুল সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে শুরু হয়েছে পুলিশ সুপার কাপ যুব কাবাডি টুর্নামেন্ট-২০১৫।

শনিবার (৩ অক্টোবর) বিকেলে প্রধান অতিথি হিসেবে বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে টুর্নামেন্টের শুভ উদ্বোধন করেন রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী। উদ্বোধনী খেলায় রাজবাড়ী সদর উপজেলা কাবাডি দল ৪৪-২৪ পয়েন্টে বালিয়াকান্দি উপজেলা কাবাডি দলকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেন, আমাদের সরকার সর্বদিক দিয়ে চেষ্টা করছে দেশকে এগিয়ে নেয়ার জন্য। বাংলাদেশ ছোট দেশ কিন্তু ক্রিকেটের জন্য সারা পৃথিবী এখন বাংলাদেশকে চেনে। ৫টি উপজেলা নিয়ে যুব কাবাডি টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে। যারা এখানে চ্যাম্পিয়ন হবে তারা বিভাগীয় পর্যায়ে অংশ নিবে। কাবাডি আমাদের জাতীয় খেলা। আমি আশা করি এ টুর্নামেন্ট থেকে ভালমানের খেলোয়াড় বেড়িয়ে আসবে।

পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির,পিপিএম-এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত বিশেষ অতিথি হিসেবে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ড. সৈয়দা নওশীন পর্নিনী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডঃ এম.এ খালেক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম শফি বক্তব্য রাখেন।

রাজবাড়ী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ্ মোঃ আওলাদ হোসেনের উপস্থাপনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদ, গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল ইসলামসহ জেলা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী বলেন, য্বুকরা আমাদের ভবিষ্যত। জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল এদেশকে সোনার বাংলা গড়ার। আমাদের এই যুবকদেরকে সোনার ছেলে হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাহলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে।

ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ড. সৈয়দা নওশীন পর্নিনী বলেন, ১৯১৫ সালে ভারতে কাবাডি খেলার জন্ম হয়। ১৯৩৫ জার্মান অলিম্পিকে কাবাডি ইন্টারন্যাশনালাইষ্ট হয়। ৭১-এ বাংলাদেশ স্বাধীন হলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কাবাডিকে জাতীয় খেলা ঘোষণা করেন। অনেকেই বলেন এই খেলা প্রায় বিলুপ্তের পথে। আমি এটা বলবনা কারণ কাবাডিতে ন্যাশনাল পর্যায়ে আমাদের ছেলেরা ভাল করছে।

সভাপতির বক্তব্যে পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির,পিপিএম বলেন, আমাদের দেশের জাতীয় খেলা কাবাডি। কালের বিবর্তনে আমাদের গ্রাম বাংলার এই ঐতিহ্যবাহী খেলাটি হারিয়ে যেতে বসেছে। আর বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সভাপতি হওয়ায় তিনি বাংলার এই ঐতিহাসিক জাতীয় খেলাকে সাধারণ মানুষের মধ্যে আরো ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে ও তৃনমূল পর্যায় থেকে খেলোয়ার সংগ্রহের উদ্দেশ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় সারাদেশে প্রথমে অফিসার ইনচার্জ টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার পর পুলিশ সুপার কাপ যুব কাবাডি প্রতিযোগিতা আজ থেকে শুরু হচ্ছে। এতে জেলার পাঁচটি উপজেলার পাঁচটি দল অংশগ্রহণ করছে। লীগ পদ্ধতি খেলা শেষে সেমিফাইনাল ও আগামী ১০ই সেপ্টেম্বর ফাইনাল খেলার মধ্য দিয়ে টুর্নামেন্ট সমাপ্ত হবে। এই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দল বিভাগীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণ করবে। বিভাগীয় চ্যাম্পিয়ন দলগুলো জাতীয় পর্যায়ে খেলায় অংশগ্রহণ করবে।

পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির খেলা আয়োজনে যাদের অবদান রয়েছে তাদেরসহ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও সম্মানিত বিশেষ অতিথি এবং অন্যান্য বিশেষ অতিথিদের ধন্যবাদ জানান।

উল্লেখ্য, খেলা শুরুর আগে রাজবাড়ী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ্ মোঃ আওলাদ হোসেনের নেতৃত্বে রাজবাড়ী সদর উপজেলা কাবাডি দল শহরে বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে। এসে সদর থানা কমিউিনিটি পুলিশিং-এর সদস্যরা বিভিন্ন শ্লোগান যুক্ত ব্যানার, ফেস্টুন ও প্লাকার্ড সহকারে অংশ নেয়।

 


এই নিউজটি 501 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments