,

চক্রান্তের শিকার হয়ে বিপাকে রাজবাড়ীর পুস্তক ব্যবসায়ীরা !

News

স্টাফ রিপোর্টার : আসন্ন বার্ষিক পরীক্ষার আগে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটি কিছু সংখ্যক লাইব্রেরীতে নকল বই বিক্রির অভিযোগে রাজবাড়ীতে সাময়িকভাবে সকল পুস্তক ব্যবসায়ীদের সাথে বই ক্রয়-বিক্রয় স্থগিত করেছে। ফলে অধিকাংশ সৎ ব্যবসায়ীরা আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এমনকি মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের ফলাফল বিপর্যয় হওয়ার আশংকাও রয়েছে।

অপরদিকে অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে পরিদর্শক টিমকে অসহযোগিতা করার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি রাজবাড়ী জেলা শাখার কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে শোকজ করার ঘটনায় চরমভাবে হতাশ হয়েছেন তারা। ব্যাপারটি উদোর পিন্ডি বুদোর ঘাড়ে ঘটনার মতো মনে করছেন তারা।

জানা যায়, গত ১৩/৯/১৫ তারিখে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির কেন্দ্রীয় নীতিমালা বাস্তবায়ন কমিটির ৩সদস্য বিশিষ্ট একটি পরিদর্শক টিম রাজবাড়ীতে আসে। তারা বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি রাজবাড়ী জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ও অতিরিক্ত সাধারন সম্পাদকের পূর্ণ সহযোগিতায় শহরের বিভিন্ন লাইব্রেরীতে অভিযান চালায়। এ সময় কয়েকটি লাইব্রেরী থেকে বিপুল পরিমানের একাদশ শ্রেণীর নকল পাঠ্যবই উদ্ধার করে অভিযান দলটি। এছাড়াও আরো কয়েকটি লাইব্রেরীতে নকল বই পাওয়া গেলেও বইগুলো দিতে অস্বীকৃতি জানায় লাইব্রেরী মালিকগণ। এক পর্যায়ে অভিযান টিমের সদস্যরা ওই বই লাইব্রেরীগুলো থেকে নকল বই উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসে। পরে উদ্ধারকৃত নকল বই গুলো যুগ্ম সম্পাদক সংলকন লাইব্রেরীর মালিক জুলফিকার আলী টিটুর তত্ত্বাবধানে রেখে পরদিন ১৪সেপ্টেম্বর তারা ঢাকায় ফিরে যান।
কিন্ত অতি দুঃখের বিষয় উদ্ধার হওয়া নকল বই বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করে কেন্দ্রীয় কমিটির সচিব এম.এ. খালেক ওই দিনই অথ্যাৎ ১৩সেপ্টেম্বর পরিদর্শক টিম (অভিযানকৃত টিম) কে অসহযোগিতা ও লাইব্রেরীগুলোতে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি বলে মিথ্যা অভিযোগ এনে রাজবাড়ীর সাধারন সম্পাদককে কারণ দর্শাণোর জন্য নোটিশ প্রদান করেন। পর দিন ১৪সেপ্টেম্বর ডাকযোগে আসা সেই নোটিশের কপি তিনি হাতে পান এবং হতাশা প্রকাশ করাসহ এ ঘটনায় নিন্দা জানান।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি রাজবাড়ী জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক ওয়াজিউল্লাজ মন্টু জানান, গত ১৩সেপ্টেম্বর পরিদর্শক টিমকে সম্পূর্ন সহযোগিতার করার পরেও অন্যায়ভাবে আমাকে দোষারোপ করা হয়েছে। নকল বই বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নিয়ে রাজবাড়ীতে সকল প্রকার বই ক্রয়-বিক্রয় স্থগিত করায় সৎ ব্যবসায়ীরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর