,

সর্বশেষ :
গোয়ালন্দে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় যুবককে পিটিয়ে হত্যা রাজবাড়ীর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী আমিন হুজুর এবার ইয়াবাসহ আটক রাজবাড়ীতে পুলিশের বাঁধায় ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল পন্ড নতুন সেনাপ্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল আজিজ আহমেদের বর্ণিল ক্যারিয়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা ও গুণীজন সংবর্ধনা : আয়োজনে আনিসুর রহমান (আন্জু) স্মৃতি যুব সংঘ পাটুরিয়ায় ভোগান্তি, দৌলতদিয়ায় স্বস্তি রাজবাড়ীতে ভিজিএফের চাল চুরি করে ফেঁসে গেলেন ইউপি চেয়ারম্যান রাজবাড়ীতে অসহায় মানুষের মধ্যে ঈদবস্ত্র বিতরণ দৌলতদিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল রাজবাড়ীতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে অস্ত্রসহ ২ ডাকাত আটক

রাজবাড়ীতে নার্সের ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ!

News

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজবাড়ী শহরের বড়পুলস্থ আরোগ্য ক্লিনিকে নার্সের ভুল চিকিৎসায় এক নবজাতকের মৃত্য হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (১০ অক্টোবর) সকালে এ ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেছে নবজাতকের স্বজনেরা।

মৃত নবজাতক রাজবাড়ী সদর উপজেলার কোলারহাট গ্রামের রাজমিস্ত্রী আলম শেখের মেয়ে।

মৃত নবজাতকের মা কাজলী বেগম জানান, গত বৃহস্পতিবার আরোগ্য ক্লিনিকে সিজারের মাধ্যমে তার একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। জন্মের পর শিশুটি অসুস্থ্য হয়ে পড়লে গত শুক্রবার শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ আব্দুল কুদ্দুস তাকে একটি চিকিৎসাপত্র প্রদান করে। চিকিৎসাপত্রে ম্যাক্সব্যাক নামক একটি ইনজেকশন লেখা হয়। ডাক্তারের চিকিৎসাপত্র অনুয়াযী নবজাতকের শরীরে ম্যাক্সব্যাক ইনজেকশনটি ৩ ভাগের ১ ভাগ দেওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু চিকিৎসাপত্রের নিয়ম অমান্য করে গতকাল শনিবার সকালে আরোগ্য ক্লিনিকের নার্স সোমা বিশ্বাস ৩ ভাগের ২ ভাগ ইনজেকশন নবজাতকের শরীরে পুশ করে দেয়। এর পরপরই শিশুটি নিস্তেজ হয়ে মারা যায়।

নবজাতকের নানী মঞ্জুরা বেগম বলেন, ইনজেকশন দেওয়ার ব্যপারে নার্স সোমা বিশ্বাসকে আমরা বার বার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ৩ ভাগের ১ ভাগ দেওয়ার কথা বলেছি। কিন্তু নার্স আমাদের কথা না শুনে ইনজেকশন কিভাবে ভাগ করে সে নিয়ম তার জানা নেই বলে নবজাতকের শরীরে তার ইচ্ছা মতো ইনজেকশন পুশ করে। এর কিছুক্ষনের মধ্যেই নবজাতকটি মারা যায়। নার্সের এ অবহেলার কারনেই আমাদের নিস্পাপ শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।

আরোগ্য ক্লিনিকের নার্স সোমা বিশ্বাসকে চিকিৎসা সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে তার শিক্ষাগত যোগ্যতার কথা জিজ্ঞেস করা হলে তিনি নবজাকের মৃত্যুতে তার অবহেলার কথা অস্বীকার করে বলেন, আমি মানবিক শাখায় পড়ালেখা করে এসএসসি ও এইচএসসি পাশ করেছি। এইচএসসি পাশ করে ফরিদপুর হ্যাপী হাসপাতাল থেকে নার্সিয়ের বিষয়ে ১বছরের ট্রেনিং করার পর এক আত্মীয়ের সুপারিশে আরোগ্য ক্লিনিকে কাজ করছি।

এ ব্যাপারে শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ আব্দুল কুদ্দুসের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তিনি রাজবাড়ীর বাইরে আছেন। এখন কথা বলতে পারবেন না।

এদিকে নবজাতক মৃত্যুর বিষয়ে কথা বলার জন্য আরোগ্য ক্লিনিকের মালিক শাখাওয়াত হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য যে, আরোগ্য ক্লিনিকের সকল নার্সদের মধ্যে একজন মাত্র নার্সের চিকিৎসা সেবা প্রদানের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাগত যোগ্যতা রয়েছে। এছাড়া বাকীদের কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই।

 

রাজবাড়ী নিউজ ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর