,

উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাই করবো , ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দেয়া হবে

News

 রাজবাড়ি ডেস্ক   :: ‘আমরা নতুন কমিটির মাধ্যমে নীতি নির্ধারণ করে আবার উপজেলা পর্যায়ে যাচাই-বাছাই করবো। ভারতীয় যেসব তালিকা গ্রহণ করে এবং লাল মুক্তিবার্তার যদি কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না থাকে তাহলে সেটা গ্রহণ করে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।’

 

 বুধবার সকালে কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা ভবন পরিদর্শনকালে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এসব কথা বলেন।
মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মনির্ভরশীল হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ভাতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা করেছে। প্রত্যেক উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করছে। যার মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধারা নিজেদের অর্থায়নে চলতে পারে।’
মন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য কবরের ডিজাইন একই রকম হবে। এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য একই রকম আলাদা কবরের ডিজাইন করা হবে।’
তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্মৃতিস্তম্ভ সম্পর্কে বলেন, ‘যেখানে গণকবর রয়েছে সেগুলোকে সংরক্ষণ করে স্মৃতিস্তম্ভ করবো যাতে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম জানতে পারে কীভাবে পাকিস্তানি হানাদাররা বর্বরোচিত হামলা করেছিল গণমানুষের ওপর। মুক্তিযুদ্ধ যেনো মানুষের স্মৃতিপটে জাগরুক থাকে সেজন্য আমরা স্মৃতিস্তম্ভ করবো।’
 এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এইচ মারুফ সিদ্দিকী, যুগ্ম সচিব আবুল কাশেম, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীসহ সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
 
পরে মন্ত্রী রাজবাড়ির বালিয়াকান্দিতে  সাহিত্যিক মীর মশাররফ হোসেনের বাস্তুভিটা ও কুমারখালীর শিলাইদহ কুঠিবাড়ী পরিদর্শন করেন।

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর