রাজবাড়ী থেকে কয়েক লক্ষ টাকা নিয়ে মার্শাল কোম্পানীর গানম্যান পলাশ আত্মগোপনে!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৩:৪৫ অপরাহ্ণ ,১৮ অক্টোবর, ২০১৫ | আপডেট: ৩:৪৫ অপরাহ্ণ ,১৮ অক্টোবর, ২০১৫
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী ইউসিবি ব্যাংকে কর্মরত থাকা অবস্থায় চাকুরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়া মার্শাল সিকিউরিটি কোম্পানীর গানম্যান মুস্তাক আহমেদ পলাশ (৩৫) কে ১০ মাসেও খুঁজে পায়নি ভুক্তভোগীরা।

বিগত ২০১৪ সালের ১১ই ডিসেম্বর অস্ত্রের লাইসেন্স নবায়ন করার কথা বলে রাজবাড়ী থেকে পালিয়ে যায় পলাশ। মুস্তাক আহমেদ পলাশের বাড়ী নড়াইল জেলার কালিয়া থানার চাচুড়ী গ্রামে। তার পিতার নাম মোঃ তোকাম মোল্লা।

ভুক্তভোগীদের মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলার বরাট ইউনিয়নের কাঁচরন্দ গ্রামের সোহরাব আলী খান ওরফে বাবু জানান, রাজবাড়ী মারোয়ারী পট্টিতে ইউসিবি ব্যাংকে যাতায়াতের কারনে ওই সময়ে (২০১৪) মার্শাল সিকিউরিটি গার্ড কোম্পানীর গানম্যান মুস্তাক আহমেদের সাথে তার পরিচয় হয়। অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই তাদের মধ্যে সু-সম্পর্ক গড়ে উঠে। এ সম্পর্কের জের ধরে মুস্তাক তাকে জানায় আপনার কোন আত্মীয় স্বজন আছে কিনা। থাকলে বলেন ভাল বেতনে কোম্পানীতে চাকুরী দিয়ে দিই। মুস্তাকের কথায় বিশ্বাস করে তিনি দুই জামাই এর জন্য তার কাছে চাকুরীর কথা বলেন এবং মুস্তাকের দাবীকৃত দেড় লক্ষ টাকা পরিশোধ করেন। এছাড়াও সে ইউসিবি ব্যাংক থেকে তাকে লোন করে দিবে বলে ৩ হাজার টাকা গ্রহণ করে। এক পর্যায়ে পলাশ আরো কয়েকজনের কাছে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে রাজবাড়ী থেকে পালিয়ে যায়।

রাজবাড়ী ইউসিবি ব্যাংকের ইও এন্ড অপারেশন ম্যানেজার তালুকদার মঞ্জুর এলাহী জানান, মুস্তাক আহমেদ পলাশ আমাদের ব্যাংকে মার্শাল সিকিউরিটি গার্ড কোম্পানীর গানম্যান ছিল। বিগত ২০১৪ সালের ১১ই ডিসেম্বর তার গানের (অস্ত্র) লাইন্সেস নবায়ন করার কথা বলে সে চলে যায়। এরপর সে আর ফিরে আসেনি। পলাশ রাজবাড়ী থেকে চলে যাওয়ার পর বিভিন্ন ব্যক্তি ব্যাংকে এসে তার খোঁজ করে এবং অনেক টাকা পাবে বলে জানায়। এ ঘটনার পর রাজবাড়ী ইউসিবি ব্যাংকে পলাশের নামে একটি পারসনাল একাউন্ট ছিল সেটি ক্লোজ করা হয়। তবে পলাশ এখন কোথায় আছে তা তিনি বলতে পারেননি।

রাজবাড়ী ইউসিবি ব্যাংকে দায়িত্বে থাকা মার্শাল কোম্পানীর গার্ড জলিল জানান, মুস্তাক আহমেদ পলাশ তার কাছ থেকেও ১০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিল। কিন্তু তা আর পরিশোধ করেনি। একই কোম্পানীর কো-অডিনেটর ফরিদ আহম্মেদ ও পিয়ন কারীমূল জানান মুস্তাক আহমেদ পলাশ তাদের কাছ থেকেও টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে। তারা আরো জানান, প্রায় প্রতিদিনই অনেক সাধারন মানুষ মুস্তাক আহমেদ পলাশকে খোঁজার জন্য ব্যাংকে আসছে। তাদের কাছ থেকেও পলাশ অনেক টাকা নিয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে।

এদিকে মার্শাল সিকিউরিটি গার্ড কোম্পানীর ঢাকা হেড অফিসে ফোন করা হলে কর্তৃপক্ষ জানান, পলাশ তাদের কোম্পানীর একজন গান ম্যান ছিল। কিন্তু কয়েক মাস আগে সে চাকুরী ছেড়ে দিয়েছে।

ভুক্তভোগীরা জানান, মুস্তাক আহমেদ পলাশ চালাক প্রকৃতির লোক। খুব সহজেই মানুষকে আকৃষ্ট করতে পারে। তাদেরকে প্রলোভন দেখিয়ে বোকা বানিয়ে পলাশ মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে রাজবাড়ী থেকে পালিয়ে আত্মগোপন করে আছে। তারা এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কোম্পানী ও পুলিশ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

 

রাজবাড়ী নিউজ ২৪.কম/ আশিক


এই নিউজটি 764 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]