বালিয়াকান্দিতে লাউ গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে দম্পতিকে মারপিট-শ্লীলতাহানী

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৩:০৬ অপরাহ্ণ ,৫ ডিসেম্বর, ২০১৫ | আপডেট: ১১:৪১ অপরাহ্ণ ,৫ ডিসেম্বর, ২০১৫
পিকচার

আশিকুর রহমান : রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার সোনাপুর গ্রামে লাউ গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধের জেরে এক দম্পতিকে মারপিট ও শ্লীলতাহানী করেছে প্রতিপরে লোকজন। আহত অবস্থায় ওই দম্পতিকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা করা হলে আসামীরা মামলাটি তুলে নেওয়ার জন্য ওই দম্পতি ও তার পরিবারকে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দিচ্ছে। ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে পরিবারটি।

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে হাসপাতালের বেডে শুয়ে আহত দম্পতি ফারুক হোসেন ও তার স্ত্রী চম্পা বেগম সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন ।

তারা জানান, তাদের প্রতিবেশী মাঝবাড়ী গ্রামের মমিন বিশ্বাসের ছেলে মিঠুন ওরফে ড্যানো (৩০) এর সাথে তাদের পরিবারের জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। গত ২৮শে নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে লাউ গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে ড্যানোর সাথে ফারুক হোসেনের কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ড্যানো ও তার পরিবারের সদস্য রাকিব জোয়াদ্দার (২২),সাকিব (২৩),খোদেজা বেগম (৪০),কাদের জোয়াদ্দার (৬২), সাথী বেগম (১৮) ও বিনয় কুমার পাল (৩৮) দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে ফারুক হোসেনের বাড়ীতে অনাধিকার প্রবেশ করে তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে চারপাশ থেকে ঘিরে ধরে। এরপর তারা ফারুককে লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতারীভাবে মারপিট করে। এ সময় সে চিৎকার দিলে তার স্ত্রী চম্পা বেগম এগিয়ে আসলে উল্লেখিতরা তাকেও লোহার রড দিয়ে মারপিট করে। উল্লেখিতরা তাকে শুধু মারপিট করেই ক্ষ্যান্ত হয়নি। তারা চম্পা বেগমের কাপড় চোপড় খুলে বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানীও করে। এক পর্যায়ে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে উল্লেখিতদের কাছ থেকে তাদের উদ্ধার করে। এ ঘটনার পর আহত অবস্থায় তাদেরকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ফারুকের পিতা দবির উদ্দিন বাদী হয়ে গত ৩০ নভেম্বর ৭জনকে আসামী করে রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত ঘটনাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য বালিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন। কিন্তু এর মধ্যে ড্যানো ও তার পরিবারের লোকজন ফারুক ও তার পরিবারকে মামলাটি তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে চলেছে। ফলে ফারুক হোসেন ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিনযাপন করছেন।

 


এই নিউজটি 702 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]