,

সর্বশেষ :
রাজবাড়ীতে পুকুরে ভেসে উঠল অজ্ঞাত বৃদ্ধের মরদেহ ‘ভিডিও ডিলিট কর, নইলে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেবো’ রাজবাড়ী জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন রাজবাড়ীর ২ টি আসনের জন্য বিএনপির মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন খালেক-আসলাম-হারুন সুষ্ঠু নির্বাচন হলে রাজবাড়ী-১ আসন পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হবো : অ্যাড. খালেক রাজবাড়ী-১ আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী অ্যাড. আসলাম মিয়ার গণসংযোগ রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ইমদাদুল হক বিশ্বাস রাজবাড়ীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন রাজবাড়ীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন আশরাফুল ইসলাম

রাজবাড়ীতে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

News

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী জেলা সদরে ১৫বছর বয়সী এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে সাত ব্যক্তি। শুধু তাই নয় ধর্ষণের ফলে ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে তাকে গর্ভপাত করানোর চেষ্টাও করা হয়েছে। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় শাকিল (১৮) নামের এজাহারভূক্ত এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (৬ জানুয়ারী) সকালে শাকিলকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত শাকিল জেলা সদরের বক্তারপুর গ্রামের মৃত কেসমতের ছেলে।

এরআগে গত ৫ জানুয়ারী রাত সাড়ে ১১টায় ওই কিশোরীর রিক্সা চালক পিতা বাদী হয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় ৮জনকে আসামী করে এ মামলাটি দায়ের করে।

মামলার অপর আসামীরা হলো- বক্তারপুর গ্রামের ইসলাম বয়াতি ওরফে বাবু বয়াতি (৪৫), মাসুদ (১৮), আলমাছ (১৬), সোবাহান (৩২), পারভেজ (১৮), আকাশ (১৮) ও সালেহা (৩৫)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বিগত ২০১৫ সালের ১৭ই আগস্ট সন্ধ্যা ৬টার দিকে ওই কিশোরী তার ছোট বোনের সাথে প্রতিবেশী ইসলাম বয়াতি ওরফে বাবু বয়াতির বাড়ীতে টেলিভিশন দেখতে যায়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে টেলিভিশন দেখে বাড়ী ফেরার মুহুর্তে বাবু বয়াতি ওই কিশোরীর ছোট বোনকে তাড়িয়ে দিয়ে তার মুখ চেপে ধরে ঘরের মধ্যে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এভাবে পর পর ৪দিন বাবু বয়াতি ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করলে একপর্যায়ে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে বাবু বয়াতির সহযোগীতায় বিভিন্ন সময়ে মাসুদ, শাকিল, আলমাছ, সোবাহান, পারভেজ ও আকাশ ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে।

এদিকে বিষয়টি জানতে পেরে ওই কিশোরীর পিতা সম্মান হানির ভয়ে কাউকে কিছু না জানিয়ে ২৫দিন আগে তাকে অন্যত্র বিয়ে দেয়। কিন্তু অন্তঃসত্ত্বার কথা জানতে পেরে শ্বশুর বাড়ীর লোকজন বিয়ের কয়েকদিন পরেই ওই কিশোরীকে তার পিতার বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়। এরপর ধর্ষণ ও অন্তঃসত্ত্বার ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্য উল্লেখিতদের আত্মীয় সালেহা গত ৫ই জানুয়ারী সকাল ৭টার দিকে ওই কিশোরীকে ভুল বুঝিয়ে রাজবাড়ী বাজারে নিয়ে আসে এবং তাকে গর্ভনষ্ট করার ৩টি ট্যাবলেট খাইয়ে বাড়ী পাঠিয়ে দেয়।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোঃ মিজানুর রহমান জানান, মামলা দায়েরের পর ৬ জানুয়ারী সকালে এজাহারভুক্ত আসামী শাকিলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আপডেট : বৃহস্পতিবার জানুয়ারী ৭, ২০১৬/ ১১:১৩ এএম/ আশিক

 

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর