সেনা প্রশিক্ষণের মাত্রা ও কৌশলে পরিবর্তন আনতে হবে : রাষ্ট্রপতি

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ ,৭ জানুয়ারি, ২০১৬ | আপডেট: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ ,৭ জানুয়ারি, ২০১৬
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তির বৈপ্লবিক প্রসারের ফলে নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট খাতের চ্যালেঞ্জও ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই প্রশিক্ষণের মাত্রা এবং কৌশলেও পরিবর্তন আনতে হবে। বিশ্বের অন্যান্য উন্নত দেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের সেনাবাহিনীকেও এগিয়ে নিতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারী) রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলায় সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের ‘শীতকালীন যৌথ প্রশিক্ষণ ও ব্রিগেড গ্রুপ অ্যাটাক’ পরিদর্শনের পর দরবার অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘প্রশিক্ষণ একটি চলমান প্রক্রিয়া। প্রশিক্ষণের মাধ্যমেই একজন সৈনিক দক্ষতার চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছতে পারে। যে কোনো সুশৃঙ্খল বাহিনীর সদস্যদের উন্নয়নে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য উন্নত দেশের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের সেনাবাহিনীকেও এগিয়ে নিতে হবে। সরকার এ লক্ষ্যে ‘ফোর্সেস গোল ২০৩০’ নির্ধারন করেছে।।

সেনাবাহিনীর উন্নয়নে সরকারের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষার পাশাপাশি সেনাবাহিনীকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বহুমুখী দায়িত্ব পালন করতে হয়। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন দেশের সেনা সদস্যদের সমন্বয়ে গঠিত কমান্ডের নেতৃত্ব দিতে হয়। তাই সেনাবাহিনীর প্রতিটি সদস্যের মেধা ও দক্ষতাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে হবে।’

সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক আবদুল হামিদ অনুষ্ঠানে সেনাবাহিনীর ‘কমব্যাট’ পোশাক পরে প্রশিক্ষণ দেখেন।

প্রশিক্ষণে ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সেনা সদস্যদের পাশাপাশি বিজিবি, আনসার ও ভিডিপি এবং বিএনসিসির ক্যাডেটরা অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ফ ম মোজাম্মেল হক, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এমপি সুবিদ আলী ভূইয়া, সদস্য এমপি কর্ণেল ফারুক খান, এমপি ইলিয়াছ আলী মোল্লা, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. জিল্লুল হাকিম, সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী, জেলা প্রশাসক মো. রফিকুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম উপস্থিত ছিলেন।।

এর আগে দুপুর ১২টা ২৫মিনিটে রাষ্ট্রপতি হেলিকপ্টারযোগে কালুখালী উপজেলার হরিণবাড়িয়া পদ্মার চরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক নির্মিত হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি সেনাবাহিনীর শীতকালীন প্রশিক্ষণের ব্রিগেড আক্রমনের মহড়া ও দরবার অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। অনুষ্ঠান শেষে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তিনি হেলিকাপ্টারযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

 

আপডেট : বৃহস্পতিবার জানুয়ারী ৭, ২০১৬/ ০৭:১০ পিএম/ আশিক


এই নিউজটি 891 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]