যৌনতা না করলে চালানো হয় অমানুষিক নির্যাতন!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৬:০৮ অপরাহ্ণ ,১৭ জানুয়ারি, ২০১৬ | আপডেট: ৬:১৫ অপরাহ্ণ ,১৭ জানুয়ারি, ২০১৬
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক : দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীর প্রভাবশালী বাড়িওয়ালীদের ছত্রছায়ায় গড়ে ওঠা দালাল চক্র প্রতিনিয়তই দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কৌশলে মেয়েদেরকে ফুঁসলিয়ে পতিতাপল্লীতে এনে বিক্রি করে। এরপর তাদেরকে জোরপূর্বক যৌন পেশায় লিপ্ত করা হয় । কোন মেয়ে যৌনতা না করতে চাইলে তার উপর চালানো হয় অমানুষিক নির্যাতন।

এদের অধিকাংশই অপ্রাপ্ত বয়সী শিশুকিশোরী হওয়ায় বর্তমান সেখানে শিশু যৌনকর্মীর সংখ্যা দিন দিন আশঙ্কা জনক হরে বাড়ছে। বৃহস্পতিবার থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে যৌনপল্লীর অন্ধকার জীবনে ১২ দিন থাকার পর ২৩ বছর বয়সী এক গার্মেন্টস কর্মীকে উদ্ধার করে। এসময় ইতি (৩৫) নামের এক বাড়িওয়ালীকে গ্রেফতার করে। গত এক বছরে থানা পুলিশ ও বিভিন্ন সংস্থা এ যৌনপল্লী থেকে শতাধিক মেয়েকে উদ্ধার করেছে।

সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রের সাথে কথা বলে জানা যায়, পাচারকারী চক্র দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কিশোরী ও গার্মেন্টস কর্মীদের ভালে বেতনে কাজ এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পতিতাপল্লীতে বিক্রি করে দেয়। এছাড়াও বিভিন্ন বাসাবাড়িতে কাজ করার সময় নির্যাতনের শিকার হয়ে বাসা থেকে বের হলে ওৎ পেতে থাকা নারী পাচারকারীদের খপ্পরে পড়ছে তারা। এক্ষেত্রে তাদেরও ভালো বেতনে চাকরি দেওয়ার কথা বলে তাদের অসহায়ত্তের সুযোগ কাজ