লক্ষ্মীকোল জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা শহিদুল্লাহ এর ইন্তেকাল

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ ,২৫ জানুয়ারি, ২০১৬ | আপডেট: ১২:০২ পূর্বাহ্ণ ,২৬ জানুয়ারি, ২০১৬
পিকচার

শিহাবুর রহমান॥ রাজবাড়ী কাজী হেদায়েত হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত ধর্মীয় শিক্ষক ও দাদশী ইউনিয়নের লক্ষ্মীকোল গ্রামের বাসিন্দা এবং লক্ষ্মীকোল জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আলহাজ্ব শহিদুল্লাহ (৮০) ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহে……………..রাজিউন)।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে বার্ধক্যজনিত কারনে তিনি ইন্তেকাল করেন ।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৫ পুত্র, ২ কন্যা, নাতী নাতনি, আত্মীয় স্বজনসহ বহু গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তার মৃত্যুতে লক্ষ্মীকোল গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সোমবার রাত ৯টায় লক্ষ্মীকোল রাজারবাড়ী মাঠ প্রাঙ্গনে তার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে সোনাকান্দর গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

আলহাজ্ব মাওলানা শহিদুল্লাহ ছিলেন একজন সৎ ও খোদা ভিরু মানুষ। অত্যন্ত দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেওয়া মাওলানা শহিদুল্লাহ অনেক কষ্টে মাদ্রাসায় পড়াশুনা করে এলেম পাশ করেন। তিনি খুব সুরেলা কন্ঠে আজান দিতে পারতেন। মাদ্রাসায় ছাত্র জীবনে সুরেলা কন্ঠে আজান দিতে পারায় শিক্ষকরাও তাকে খুব স্নেহ করতেন। তিনি কাজী হেদায়েত হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক ছিলেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি লক্ষ্মীকোল জামে মসজিদে প্রায় ৪০বছর ধরে একাধারে ইমামতি করেছেন। শুধু ইমামতি বললে ভুল হবে। কারণ ইমামতির পাশাপাশি তিনি মুয়াজ্জিনের দায়িত্বওপালন করেছেন। কিন্তু সংসারে অভাব থাকার পরও তিনি কখনো মসজিদ থেকে বেতন নেননি। তারপরও তিনি তার দুই ছেলেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করেন। মাওলানা শহিদুল্লাহ শেষ বয়সে এসে হজ্ব করেন।

মাওলানা শহিদুল্লাহ এর মৃত্যুতে লক্ষ্মীকোলবাসী শোকাহত পরিবারকে গভীর সমবেদনা জানান এবং মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

 


এই নিউজটি 768 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]