পাংশায় সিঁদ কেটে ঘরে ঢুকে মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ ,৩ মার্চ, ২০১৬ | আপডেট: ১১:৩৭ পূর্বাহ্ণ ,৩ মার্চ, ২০১৬
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক : রাজবাড়ীর পাংশায় প্রেমে রাজী না হওয়ায়  সপ্তম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে সিঁদ কেটে ঘরে ঢুকে অপহরণ করা হয়েছে।

গত ২ ফেব্রুয়ারী রাতে  উপজেলার চররামনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা গত ১লা মার্চ ৪জনকে আসামী করে রাজবাড়ীর বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসায় যাওয়া আসার পথে একই গ্রামের ইমারত মোল্লার ছেলে আলাল মোল্লা(২৫) উত্যক্ত করতো। ওই মাদ্রাসা ছাত্রী বিষয়টি পরিবারের লোকজনকে জানালে তারা আলালকে শাসন করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে আলাল। এ জের ধরেই গত ২০শে ফেব্রুয়ারী রাত ১০টার দিকে আলাল ও তার সহযোগিরা কাচা ডোয়া ঘরের সিঁদ করে ভিতরে প্রবেশ করে ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর মুখে চেতনাশক ওষুধ শুকিয়ে তাকে ওই স্থান দিয়েই অপহরণ করে নিয়ে যায়। সকাল ৬টার দিকে পরিবারের লোকজন ঘুম থেকে উঠে ঘরের ডোয়ায় সিঁদ কাটা দেখতে পেয়ে দরজা ধাকাধাক্কি করে। এ সময় ওই মাদ্রাসার ছাত্রীর অপর বোন দরজা খুলে দেয়। পরে জানা যায় ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে সিদ কেটে অপহরণ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর পিতা পাংশা থানায় অভিযোগ দিতে থানা কর্তৃপক্ষ অভিযোগটি গ্রহন না করলে তিনি গত ১লা মার্চ রাজবাড়ীর বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইবুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় আলাল মোল্লা ছাড়াও একই গ্রামের তার সহযোগি চাঁদ আলীর ছেলে আলামীন(২১), রহিম খার ছেলে রুবেল(২৫) ও মিজান শেখের ছেলে মিনাই শেখ (২৪)কে আসামী করা হয়।

অপর একটি সুত্র জানায়, ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে আলাল মোল্লা প্রেম নিবেদন করতো। এতে সে রাজী না হওয়ায় সিদ কেটে তাকে অপহরণ করা হয়।  (সূত্র- মাতৃকন্ঠ)


এই নিউজটি 791 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments