১২ মাসে ১৩ জনের মৃত্যু!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৮:৪৭ অপরাহ্ণ ,৩০ মার্চ, ২০১৬ | আপডেট: ৮:৪৭ অপরাহ্ণ ,৩০ মার্চ, ২০১৬
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক : দক্ষিণাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া-খুলনা রেলসড়কের রাজবাড়ীতে গত ১ বছরে অর্থাৎ ২০১৫ সালে ট্রেনে কাটা পড়ে ১৩ জন পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। আর চলতি বছরের দু’মাস অর্থাৎ জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে মারা গেছে আরো ৪ জন।

রাজবাড়ী দৌলদিয়া থেকে পাংশা পর্যন্ত ১২টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে নেই রেলক্রসিং। কিন্তু রেল কর্তৃপক্ষ বলছে অসাবধানতার কারণে ঘটছে এসব দুর্ঘটনা।

রেল লাইনের উপর দিয়ে জন সাধারণের চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সরকারিভাবে। অথচ দৌলতদিয়া-খুলনা রেলসড়কের রাজবাড়ীর অংশের বিভিন্ন স্থান দিয়ে অবাধে রেল লাইনের উপর দিয়ে চলাচল করে পথচারীরা।

এছাড়া রেলক্রসিং এলাকায় বাজার বা দোকান-পাট থাকার কারণে কিছুটা হলেও ওইসব স্থানে লোকজন থাকে প্রতিনিয়ত। এসব কারণেও অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটছে।

আন্তঃনগর ট্রেনের চালকদের ভাষ্যমতে পথচারীদের অসাবধানতার কারণেই ঘটছে এমন দুর্ঘটনা। গাড়ি রানিং অবস্থায় ১৪৪ গজের মধ্যে কোনো পথচারী এসে পড়লে তবে ট্রেন নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব, কিন্তু ১০/১৫ গজের মধ্যে এসে পড়লে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।

রাজবাড়ী রেলওয়ে থানা (জিআরপি) পুলিশের ওসি মো. হারুন মজুমদার জানান, গত ১ বছরে রাজবাড়ীতে ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেছে ১৩ জন। আর চলতি বছরের ২ মাসে ৪ জন। এ নিয়ে চৌদ্দ মাসে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ট্রেনে কাটা পড়ে।
তিনি বলেন, মূলত অসাবধানতার কারণেই এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে।

রাজবাড়ীর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার আব্দুস শুকুর জানান, জেলার বেশ কয়েকটি স্থানে রেলক্রসিং না থাকায় ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। দ্রুত সমস্য সমাধানে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আনার কথাও বলেন তিনি।

 


এই নিউজটি 639 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments