রাজবাড়ী সদর উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৯:৫২ পূর্বাহ্ণ ,৮ এপ্রিল, ২০১৬ | আপডেট: ১২:৩৭ অপরাহ্ণ ,৮ এপ্রিল, ২০১৬
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক॥ প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উৎসবমুখর পরিবেশে রাজবাড়ী সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬০জন, সদস্য পদে ৪৪৫জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৩০জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এরমধ্যে অধিকাংশ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ধার্য্য ছিল।

চন্দনী ইউনিয়ন: এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৩ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. আব্দুর রব, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মালেক শিকদার ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান একেএম সিরাজুল আলম সিরাজ। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৩জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

খানগঞ্জ ইউনিয়ন: এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন দুইজন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের খোন্দকার গোলাম কিবরিয়া বাবলু ও বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আতাহার হোসেন তকদির। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

বরাট ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের আসজাদ হোসেন আরজু, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী শামসুদ্দিন, ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ মনিরুজ্জামান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আয়নাল শেখ। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

বসন্তপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৫ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. জাকির সরদার, বিএনপির মো. সাজেদুল বিশ্বাস, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল মান্নান মিয়া, মীর্জা বদিউজ্জামান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. কাউছার খান। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৮ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

সুলতানপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. আব্দুর রাজ্জাক মিয়া, বিএনপির মো. জালাল উদ্দিন মোল্লা, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. হাবিবুর রহমান ও স্বতন্ত্র মোছা. সেলিনা বেগম। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ২৫জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মূলঘর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের ওহিদুজ্জামান শেখ, বিএনপির মো. আব্দুল মান্নান মোল্লা ও জাকের পার্টির বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আ. মান্নান মুসল্লী। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ২৯ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

রামকান্তপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. আবুল হাশেম মিয়া, বিএনপির খলিলুর রহমান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক খান রাজু ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. মোজাহিদুল ইসলাম সেকেন্দার। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩২ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

বানিবহ ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ গোলাম বাচ্চু, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মো. আ. লতিফ মিয়া, স্বতন্ত্র মো. আকতারুজ্জামান মিয়া ও মো. আলম মিয়া। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ২৭ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

মিজানপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৩ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের সাজেদুল হক রাজা, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আতিয়ার রহমান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মো. কবির উদ্দিন সিকদার বাবলু। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৮ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

দাদশী ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৪ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. রমজান আলী, বিএনপির হাফেজ মো. লোকমান হোসেন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান বাচ্চু ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আ. মালেক। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৭ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

পাঁচুরিয়া ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ২ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী আলমগীর ও বিএনপির সাবেক চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান রতন। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ২৬ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

আলীপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে ৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের সাবেক চেয়ারম্যান মো. শওকত হাসান, বিএনপির আব্দুল রাজ্জাক মন্ডল, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শাহীন শেখ, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হক, আব্দুল রাজ্জাক ও সিরাজুল ইসলাম। এ ইউনিয়নে সদস্য পদে ৩৬ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

খানখানাপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৭ জন প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের সাবেক চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম লাল, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান একেএম ইকবাল হোসেন, স্বতন্ত্র মো. হালিম শেখ, শেখ মুহা. ফরহাদ নান্নু, আলহাজ্ব মো. নুরুল ইসলাম, মো. আমজাদ হোসেন ও আতিক আল আলম। এ ইউনিয়ন থেকে সদস্য পদে ৩১ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শহীদওহাবপুর ইউনিয়ন: চেয়ারম্যান পদে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরা হলেন- আওয়ামী লীগের তোরাপ আলী মন্ডল, বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান একেএম শফিউদ্দিন আহম্মেদ কাশেম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ ভূইয়া, মো. শাহিন খান, স্বতন্ত্র মো. সজিব ফকির, নাজমা বেগম, কেএম তরিকুল ইসলাম ও জলিল মোল্লা। এ ইউনিয়ন থেকে সদস্য পদে ৩০ জন ও সংরক্ষিত সদস্য পদে ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

আগামী ৭ই মে সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৪টি ইউনিয়নের বিপরীতে ৭জন রিটার্নিং অফিসার নিযুক্ত করা হয়েছে। আগামী ১০ ও ১১ই এপ্রিল মনোনয়ন যাচাই বাছাই ও আগামী ১৮ই এপ্রিল প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ধার্য্য করা হয়েছে। তবে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে মনোনয়ন পত্র দাখিলকারীদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। কয়েকজন প্রার্থীর সাথে আলাপকালে জানাগেছে, দল থেকে তাদের বহিস্কার করলেও তারা নির্বাচনে মাঠে থাকবেন। (সূত্র- দৈনিক মাতৃকন্ঠ) ।

 


এই নিউজটি 1158 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments

More News from রাজনীতি