মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে গোয়ালন্দে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সংবাদ সম্মেলন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১১:৫৬ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৬ | আপডেট: ১১:৫৬ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৬
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক : রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা গোলাম মাহাবুবুর রাব্বানীর স্ত্রী আফরোজা রাব্বানী কর্তৃক দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম মন্ডল ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের নামে ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সকাল ১১টায় গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব নুরুজ্জামান, সহ-সভাপতি ও গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবিএম নুরুল ইসলাম, গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল ইসলাম মন্ডল, গোয়ালন্দ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল মন্ডল, গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এবিএম আব্দুল বাতেন ও শ্রমিকলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আতিকুজ্জামান সেন্টু। সংবাদ সম্মেলনে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক নির্মল চক্রবর্তী, ছোট ভাকলা ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, দেবগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান আতর আলী, উজানচর ইউপি চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন মৃধা, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক লিটন, হালিম শেখ, প্রমুখসহ জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন প্রিন্ট এবং ইলেক্টনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেন, জনগণ গোলাম মাহাবুবুর রাব্বানীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছিল। কিন্তু সে জনগণের আশা প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছে। শুধু তাই নয় সে বিগত গোয়ালন্দ উপজেলা পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করেছে। যে কারণে দলীয় প্রার্থী পরাজিত হয়েছে। এতে দলের ভার্বমূর্তি নষ্ট হয়েছে। এছাড়াও সে গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুজ্জামান এবং আমাকেও (সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী) বিভিন্ন সময়ে গালিগালাজ করে। দৌলতদিয়া পতিতালয় থেকে নিয়মিত টাকা আদায় করাসহ নানা অপকর্মের কারণে তাকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কারের পর থেকে সে দলের পরীক্ষিত নেতা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মন্ডলের বিরুদ্ধে নানা রকম ষড়যন্ত্র করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় সে তার এক আত্মীয় ঢাকার সাংবাদিক বাড়ীতে ডেকে এনে দুইদিন রেখে নুরুল ইসলাম মন্ডলের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। শুধু তাই নয় ঢাকাতে নুরুল ইসলাম মন্ডলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। এমনকি সে (গোলাম মাহাবুবুর রাব্বানী) তার স্ত্রী আফরোজা রাব্বানীকে দিয়ে নুরুল ইসলাম মন্ডল ও সহযোগী সংঠনের নেতৃবৃন্দের নামে আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

সংসদ সদস্য আরো বলেন, আপনারা সাংবাদিক ঘটনা সত্য কিনা যাচাই বাছাই করে সংবাদ প্রকাশ করবেন। মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করবেন না। গোলাম রাব্বানীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। কিন্তু সে যে সমস্ত অন্যায় কাজে লিপ্ত হয়েছে তাকে স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই।

 (সূত্র- জে নিউজ বিডি.কম)


এই নিউজটি 635 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments