রাজবাড়ীতে স্কুল ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৪৩ অপরাহ্ণ ,২৭ আগস্ট, ২০১৬ | আপডেট: ১০:৫৪ অপরাহ্ণ ,২৭ আগস্ট, ২০১৬
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার॥ রাজবাড়ী জেলা সদরের বানীবহ ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করার অভিযোগের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে।

শনিবার (২৭ আগস্ট) সকালে এ ঘটনায় অভিযুক্ত লক্ষ্মীনারায়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সালাউদ্দিন খান আলমের বিরদ্ধে দায়েরকৃত মামলা ষড়যন্ত্রমুলক দাবি করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন এলাকার একটি গ্রুপ।

এ মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন লক্ষ্মীনারায়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ইউপি সদস্য সাখাওয়াত হোসেন, সহ-সভাপতি আকতার হোসেন, দাতা সদস্য আঞ্জুমারা বেগম প্রমুখ।

বক্তারা অবিলম্বে শিক্ষক সালাউদ্দিন খান আলমের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

অপরদিকে, এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক সালাউদ্দিন খান আলমের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক মন্টুর নেতৃত্বে মানববন্ধন করেন এলাকার অপর একটি গ্রুপ ও ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্যে, রাজবাড়ী জেলা সদরের বানীবহ ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়নপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করার অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে স্কুল শিক্ষক সালাউদ্দিন খান আলমের (৪৫) বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় একটি মামলা করেন।

আলম রাজবাড়ী সদর উপজেলার বানীবহ ইউনিয়নের লক্ষীনারায়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও একই ইউনিয়নের মহিষবাথাম গ্রামের মৃত মোকলেছ মাস্টারের ছেলে।

ওই স্কুল ছাত্রী জানায়, গত ১৮ আগস্ট সকাল ৬টার দিকে ওই ছাত্রী শিক্ষক আলমের বাড়িতে প্রাইভেট পড়তে যায়। প্রাইভেট শেষে সকাল ৮টার দিকে অন্য ছাত্রীদের বিদায় দিয়ে আলম তাকে বলেন, ‘তোমার একটা সাবজেক্টে পড়া বাকী রয়েছে, তুমি থাকো’। এরপর সে পড়ার জন্য অপেক্ষা করতে থাকলে আলম তাকে ঝাপটে ধরে এবং যৌন নিপীড়ন করে। এ সময় সে চিৎকার দিলে আলম ঘর থেকে দ্রুত বেরিয়ে যায়।

ওই ছাত্রীর মা বলেন, এ ঘটনার পর স্থানীয়ভাবে সালিশে শিক্ষক আলম আমাদেরকে ৫ হাজার টাকা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়েছিল। কিন্তু আমরা টাকা না নিয়ে বিচারের দাবি করি।

তিনি আরও বলেন, গত ৩ মাস ধরে আলম আমার মেয়েকে যৌন নিপীড়ন করে আসছিল। কিন্তু মান-সম্মানের ভয়ে আমরা বিষয়টি কাউকে জানাই নি।

ঘটনাটি জানাজানি হয়ে গেলে আলম মামলা না করার জন্য ওই ছাত্রীর পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছিল বলেও দাবি করেন ছাত্রীর মা।

তবে এ ঘটনা পুরোপুরি মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে দাবি করেন শিক্ষক আলম।


এই নিউজটি 919 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments