অস্থায়ী সেনা ক্যাম্পের একটি ব্যারাক নদী গর্ভে বিলীন, ঝুঁকিতে রাষ্ট্রপতির গেষ্ট হাউজ

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৩:১৬ অপরাহ্ণ ,৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ | আপডেট: ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ ,১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পদ্মার অব্যাহত ভাঙ্গনে রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার রতনদিয়া ইউপির চর কাশিনাথপুরে অবস্থিত প্রস্তাবিত রাজবাড়ী সেনানিবাস এলাকার অস্থায়ী সেনা ক্যাম্পের একটি ব্যারাকের প্রায় সম্পূর্ণ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া ভাঙ্গনের ঝুঁকিতে রয়েছে রাষ্ট্রপতির গেষ্ট হাউজ।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অস্থায়ী সেনা ক্যাম্পের ব্যারাক প্রায় সম্পূর্ণ নদী গর্ভে চলে গেছে। এর পাশেই থাকা গেষ্ট হাউজ ভাঙ্গনের ঝুঁকিতে রয়েছে। তবে গেষ্ট হাউজের দরজা, জানালা ও অন্যান্য উপকরণ ইতিমধ্যে খুলে সরিয়ে নিয়েছে সেনা কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, রাজবাড়ী সেনানিবাস এলাকা ও গেষ্ট হাউজ নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষার জন্য গত ৫দিন আগে পানি উন্নয়ন বোর্ড কাজ শুরু করেছে।

রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী গৌরপদ সুত্রধর বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, সেনানিবাস এলাকায় গত ৫দিন আগে ৩০লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৪০০ মিটার এলাকা নদী ভাঙ্গন রোধে কাজ শুরু করা হয়েছে। ওই এলাকায় বাঁশের পাইলিং করে বালু ভর্তি সিনথেটিক ব্যাগে ডাম্পিং করা হচ্ছে। তারপরও ভাঙ্গন ঠেকানো সম্ভব হচ্ছে না।

অপরদিকে, চলতি বর্ষা মৌসুমে কালুখালী উপজেলার চরাঞ্চলে পদ্মা নদীর পাড়ে অবস্থিত রাজবাড়ী সেনানিবাস এলাকা বন্যা কবলিত হওয়ায় সেখানকার অস্থায়ী সেনা ক্যাম্পে থাকা সেনা সদস্যরা গত ২৮ জুলাই ব্যারাক ত্যাগ করে কালুখালী উপজেলা পরিষদ ও রতনদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে অবস্থান নেয়।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ৭ জানুয়ারী বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর শীতকালীন প্রশিক্ষণ মহড়া উপলক্ষে সেখানে নির্মিত হয় রাষ্ট্রপতির গেষ্ট হাউজ এবং এর কয়েক মাস পরে তৈরী করা হয় সৈনিক ব্যারাক। ওই মহড়ার পর থেকে এখানে ৫৫ পদাতিক ডিভিশন যশোর অঞ্চলের তত্ত্বাবধানে অস্থায়ী সেনা ক্যাম্প রয়েছে।

(সূত্র- দৈনিক মাতৃকন্ঠ)


এই নিউজটি 3353 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]