ঈদের দিনে ভাতিজার লাশ আনতে গিয়ে লাশ হলেন চাচা!

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ১০:৩৮ অপরাহ্ণ ,১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ | আপডেট: ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ ,১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার॥ রাজধানীর মিরপুর এলাকার একটি হসপিটালে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত দুইটার দিকে মারা যায় ফুফাতো ছোট ভাইয়ের এক মাস বয়সী শিশুপুত্র। ভাইয়ের সেই শিশুপুত্রের লাশ রাজবাড়ীতে আনার জন্য মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ঈদের দিন ভোরে দৌলতদিয়া থেকে মাইক্রোবাসযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন আশরাফ হোসেন মৃধা (৪০)। কিন্তু ভাতিজার লাশ বাড়িতে ফিরিয়ে আনতে পারেন নি তিনি। বরং নিজেকেই লাশ হয়ে বাড়িতে ফিরতে হয়েছে।

ওই মাইক্রোবাসটি পথিমধ্যে ধামরাই এলাকায় পৌঁছানোর পর দুর্ঘটনার কবলে পড়লে ঘটনাস্থলেই নিহত হন আশরাফ মৃধা। এসময় গুরুতর আহত হন ওই গাড়িতে থাকা আশরাফ মৃধার দুই ফুফাতো ভাই আতিয়ার রহমান (৩০) ও রতন রহমান (৩৫)।

নিহত আশরাফ মৃধা রাজবাড়ী জেলার সদরের বসন্তপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামের মৃত আজিজ মৃধার ছেলে এবং আহত আতিয়ার ও রতন একই ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামের মৃত হোসেন বিশ্বাসের ছেলে।

আহত আতিয়ার ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও রতন ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে আতিয়ারের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

নিহত ও আহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, নিহত আশরাফ মৃধা ও আহত আতিয়ার রহমান সম্পর্কে মামাতো-ফুফাতো ভাই। গত এক মাস আগে রাজধানীর মিরপুর এলাকার একটি হসপিটালে আতিয়ারের একটি ছেলে সন্তান জন্মগ্রহণ করে। কিন্তু জন্মের পর থেকেই শিশুটি অসুস্থ্য হওয়ায় হসপিটালেই চিকিৎসাধীন ছিলো।  সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত দুইটার দিকে শিশুটি মারা যায়। এ খবর শুনে লাশটি বাড়ি নিয়ে আসার জন্য মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ঈদের দিন ভোরে আতিয়ার, তার আপন ভাই রতন ও মামাতো বড় ভাই আশরাফ মৃধা দৌলতদিয়া থেকে একটি মাইক্রোবাসযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন। তাদের মাইক্রোবাসটি পথিমধ্যে ধামরাই এলাকায় পৌঁছালে অপর একটি মাইক্রোবাসকে সাইড দিতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে গাছের সাথে ধাক্কা খায়। এতে আশরাফ মৃধার মাথায় আঘাত লেগে তিনি ঘটনাস্থলেই নিহত হন এবং আতিয়ার ও রতন আহত হন। এসময় স্থানীয়রা আহত অবস্থায় আতিয়ার ও রতনকে উদ্ধার করে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

পরে পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে ধামরাইয়ে গিয়ে মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে আশরাফ মৃধার লাশ রাজবাড়ীতে নিয়ে আসেন। এসময় আহত রতন একটু সুস্থ্য থাকায় তাকেও আশরাফের লাশের সাথে নিয়ে এসে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু আতিয়ারের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রেখে আসা হয়।

এদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজবাড়ী জেলার সদরের বসন্তপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামে নিহত আশরাফ মৃধার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় এক হৃদয় বিদারক দৃশ্য। একপাশে আশরাফ মৃধার লাশটি গোসল করানো হচ্ছে। আরেকপাশে তার পরিবারের লোকজন আহাজারি করছেন। ঈদের দিনটি তাদের কাছে হয়ে উঠেছে বিষময়। এছাড়া এলাকার সহস্রাধিক নারী-পুরুষ লাশটি একনজর শেষ দেখার জন্য ভির জমিয়েছেন।

ঈদের দিনে আশরাফ মৃধার এ আকস্মিক মৃত্যুতে পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

 রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক


এই নিউজটি 1011 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments