,

সর্বশেষ :
সুষ্ঠু নির্বাচন হলে রাজবাড়ী-১ আসন পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হবো : অ্যাড. খালেক রাজবাড়ী-১ আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী অ্যাড. আসলাম মিয়ার গণসংযোগ রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ইমদাদুল হক বিশ্বাস রাজবাড়ীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন রাজবাড়ীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য আ’লীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন আশরাফুল ইসলাম রাজবাড়ী-১ আসনের জন্য জাতীয় পার্টির মনোনয়ন ফরম নিলেন মিল্টন প্রত্যেকটি মানুষের ঘরে শান্তি পৌঁছে দেওয়া হবে : রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার রাজবাড়ীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চরমপন্থি নেতা নিহত রাজবাড়ীতে বিএনপি’র ২৭ নেতাকর্মী কারাগারে

রাজবাড়ী সদরে দীর্ঘ দুই মাস সাব-রেজিস্ট্রার নেই, জনদুর্ভোগ চরমে

News

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক দীর্ঘ প্রায় ২ মাস যাবৎ রাজবাড়ী সদরে সাব-রেজিস্ট্রার না থাকার ১৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা এলাকায় জমি বেচাকেনা বন্ধ থাকাসহ ব্যাপক জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি মোটা অংকের রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

জানাগেছে, রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রার মোঃ আইয়ুব আলী মন্ডল জেলা রেজিস্ট্রার পদে পদোন্নতি পাওয়ায় গত ২৫শে এপ্রিল-২০১৬ তারিখে তিনি গাইবান্ধায় যোগদানের উদ্দেশ্যে সদর সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের ১ম মোহরার শাহিদা সুলতানার কাছে দায়িত্বভার হস্তান্তর করে রাজবাড়ী ত্যাগ করেন।

এরপর নিবন্ধন পরিদপ্তরের মহা-পরিদর্শক খান মোঃ আবদুল মান্নান গত ৯ই মে এক অফিস আদেশের মাধ্যমে স্থায়ী সাব-রেজিস্ট্রার নিয়োগ না হওয়া পর্যন্ত ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা’র সাব-রেজিস্ট্রার গোলাম মাহাবুবকে রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সপ্তাহে ২দিন খন্ডকালীন দায়িত্ব পালনের নির্দেশ প্রদান করেন। সেই আদেশ অনুযায়ী ভাঙ্গার সাব-রেজিস্ট্রার গোলাম মাহাবুব গত ১৫ই মে থেকে রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সপ্তাহে ২দিন করে(প্রতি রবি ও সোমবার) খন্ডকালীন দায়িত্ব পালন করা শুরু করেন।

এদিকে গত ১লা আগস্ট দুপুরে রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিস এলাকায় ডিবি ও সদর থানা পুলিশের চাঁদাবাজ বিরোধী অভিযানে ৬জন গ্রেফতার হয়।

ওই ঘটনার পর বিভিন্ন মহলে সদর সাব-রেজিস্টার অফিসে দলিল সম্পাদনে ঘুষ-দুর্নীতির বিষয়টি ব্যাপক আলোচিত হয় এবং বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সাব-রেজিস্ট্রার গোলাম মাহাবুব। পরবর্তীতে তিনি গত ৪ঠা আগস্ট তারিখে রাজবাড়ী জেলা রেজিস্ট্রারের নিকট লিখিত পত্র দিয়ে নিজের শারীরিক অসুস্থ্যতা ও ভাঙ্গা থেকে রাজবাড়ীর দুরত্বের কথা উল্লেখ করে খন্ডকালীন দায়িত্ব পালনে অপারগতা প্রকাশ করে রাজবাড়ীতে আসেননি।

তারপর থেকে অদ্যাবধি প্রায় দুই মাস রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিস সাব-রেজিস্ট্রার শূন্য রয়েছে। ফলে কোন ধরণের দলিল রেজিস্ট্রি হচ্ছে না।

দলিল লেখকদের সাথে আলাপকালে তারা জানায়, চাঁদাবাজ চক্রের জুলুম ও অত্যাচারের করণে দলিল লেখক ও অফিস স্টাফরা অতিষ্ঠ হয়ে সম্প্রতি একদিন কর্মবিরতি পালন করে।

খোঁজ নিয়ে জানাযায়, ভাঙ্গার সাব-রেজিস্ট্রার গোলাম মাহাবুব রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে খন্ডকালীন অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনকালে সপ্তাহে ২দিনে গড়ে ২৫০টি করে দলিল সম্পাদন হতো। তারপূর্বে স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন গড়ে সম্পাদিত হতো ৫০টি করে দলিল।

সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের রাজস্ব আয় পর্যালোচনায় দেখা যায়, নগদ স্ট্যাম্প, কোর্ট ফি, দলিলের নকল ফি, পে-অর্ডার, রেজিস্ট্রেশন ফি, চালানের মাধ্যমে আদায়, আয়কর, পৌরকর এবং উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ করসহ চলতি ২০১৬ সালের জানুয়ারী মাসে রাজস্ব আয় হয়েছে ৯২ লক্ষ ১৯ হাজার ৮৯২ টাকা, ফেব্রুয়ারী মাসে ৮৩ লক্ষ ৫০ হাজার ৫৯৬ টাকা, মার্চ মাসে ১ কোটি ৬৫ লক্ষ ১হাজার ৫৪৮ টাকা, এপ্রিল মাসে ৭২ লক্ষ ৮৩৫ টাকা, মে মাসে ৬৩ লক্ষ ৯৩ হাজার ১৭৮ টাকা, জুন মাসে ৯৯ লক্ষ ৫৮ হাজার ৫৬৭ টাকা, জুলাই মাসে ৭০ লক্ষ ৬৯ হাজার ৫৬৯ টাকা এবং আগস্ট মাসে মাত্র ১৪ লক্ষ ৯৮ হাজার ৫৬৫ টাকা।

কর্মকর্তা না থাকায় অফিসের ৫জন কর্মচারী (অফিস সহকারী ১জন, ২জন মোহরার, ১জন অফিস সহায়ক ও ১জন টিসি সহকারী) গত আগস্ট মাসের বেতন ও ঈদ বোনাস বোনাস পাননি। কর্মচারী মোঃ আইনুদ্দিন ফকির ঈদের বেতন-বোনাসও পাননি। এ ছাড়াও সাব-রেজিস্ট্রার না থাকায় অফিসে নো-ওয়ার্ক নো-পে ভিত্তিতে কর্মরত ২৮জন নকলনবীশ তাদের পারিশ্রমিক উত্তোলন করতে পাচ্ছেন না।

দীর্ঘ প্রায় ২মাস দলিল রেজিস্ট্রি বা জমি বেচাকেনা বন্ধ থাকায় ৬৯জন দলিল লেখক এবং ১৭জন স্ট্যাম্প ভেন্ডার ও তাদের ৪০জন সহকারী বর্তমানে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

জমি রেজিস্ট্রি করতে আসা কয়েকজন জানায়, দলিল রেজিস্ট্রি বন্ধ থাকায় সদর উপজেলার বহু মানুষ বিপাকে পড়েছেন। অনেকেই জমি বিক্রি করতে না পেরে পরিবার-পরিজনের উন্নত চিকিৎসা করাতে, কন্যার বিয়ে দিতে পারছেন না। আবার অনেক ব্যবসায়ী জমি মর্টগেজ রেজিস্ট্রি করতে না পারায় ব্যাংক ঋণ পাচ্ছেন না। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

ভূক্তভোগী মহল, মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে ও সরকারী রাজস্ব আদায়ের স্বার্থে অবিলম্বে সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সাব-রেজিস্ট্রার নিয়োগ এবং দুর্নীতি বন্ধ করাসহ দালাল ও চাঁদাবাজমুক্ত পরিবেশ তৈরীর দাবী জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হলে জানাযায়, রাজবাড়ী জেলা রেজিস্ট্রার এসএমএ সরোয়ার হোসেন পবিত্র হজ্ব পালন শেষে এখনো দেশে ফেরেনি।

জেলা রেজিস্ট্রার কার্যালয়ের একটি সুত্র জানায়, রাজবাড়ী সদর সাব-রেজিস্ট্রার পদে আশুলিয়ার সাব-রেজিস্ট্রার গাজী আব্দুল করিমকে বদলী করা হলেও তিনি এখনো যোগদান করেননি।

(সূত্র- দৈনিক মাতৃকন্ঠ)

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর