,

পাংশায় বিয়ের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

News

স্টাফ রিপোর্টার রাজবাড়ীর পাংশায় বিয়ের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

গত ২০ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে উপজেলার স্বর্ণগড়া গ্রামে ওই ছাত্রীর বসতঘরের মধ্যে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাটি স্থানীয়দের জানালেও অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলেনি কেউ। অবশেষে গত ২৩ অক্টোবর রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করে ওই ছাত্রী।

মামলা সুত্রে জানাযায়, পাংশার স্বর্ণগড়া গ্রামের ওই ছাত্রীকে স্কুলে যাওয়া আসার পথে পাংশা পৌরসভার বিষ্ণুপুর গ্রামের আঃ গাফফার মাসুদ বিয়ের প্রস্তাব দিতো। এতে রাজী ছিল না ওই স্কুল ছাত্রী। ঘটনার দিন অথ্যাৎ গত ২০ অক্টোবর রাত ১০টার দিকে নিজ রুমে পড়াশুনাকালে অতর্কিতভাবে দরজা ধাক্কা দিয়ে গাফফার ও অজ্ঞাত দুই মুখোশধারী প্রবেশ করে। এরপর কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই গাফফার চাকু বের করে হত্যার হুমকি দিয়ে তাকে চুপ থাকতে বলে। এ সময় অজ্ঞাত এক মুখোশধারী ওই ছাত্রীর মুখ বেধে খাটের উপর শুইয়ে ফেলে এবং বিদ্যুতের লাইট বন্ধ করে দিয়ে তারা রুমে বাইরে এসে দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপর গাফফার ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এ ঘটনার পর ওই ছাত্রী মোবাইলে বিষয়টি তারা বাবাকে জানালে তার বাবা ঢাকা থেকে বাড়িতে এসে এলাকার গর্ণমান্য ব্যক্তিদের কাছে বিচার চায়। কিন্তু অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলেনি। এমনকি পাংশা থানায় অভিযোগ করলেও সেটি গ্রহণ করেনি থানা কর্তৃপক্ষ।

নিরুপায় হয়ে অবশেষে গত ২৩ অক্টোবর ওই ছাত্রী বাদী হয়ে গাফফার ও অজ্ঞাত দুইজনকে আসামী করে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করে।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর