,

সর্বশেষ :
শহিদদের শ্রদ্ধা জানাতে কলাগাছের স্মৃতির মিনার রাজবাড়ীতে বই মেলা শুরু রাজবাড়ীতে মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে বাবার যাবজ্জীবন উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ট্রাষ্টি বোর্ডকে আরও ৮ লাখ টাকা দিলেন ডা. আবুল হোসেন বালিয়াকান্দিতে শিশু ছাত্রীদের ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার রাজবাড়ীতে ১৫ কেজি গাঁজাসহ স্বামী-স্ত্রী আটক রাজবাড়ীতে কলেজছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে রাজমিস্ত্রী আটক এক যুগ ধরে চিকিৎসাসেবার নামে প্রতারণা করে আসছেন রাজবাড়ীর পচা কর্মকার! সেদিন রোদ্দুর হয়নি বলেই আজ বৃষ্টি হলো… এহসান কলিন্স শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনসভায় ফয়সাল সরদারের নেতৃত্বে লক্ষীকোলের ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ

রাজবাড়ীতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

News

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ী জেলা সদরের সূর্য্যনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে ওই বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে এ অভিযোগে শিক্ষক হাবিবুর রহমানকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন স্থানীয়রা। তবে অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেছেন হাবিবুর রহমান।

খবর পেয়ে রাজবাড়ী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল বাশার মিয়াসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসেন। এর আগে উত্তেজিত জনতার ভয়ে ওই শিক্ষক প্রায় এক ঘণ্টা বাথরুমের মধ্যে লুকিয়ে থাকেন।

সূর্য্যনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমান জানান, গত ৭ নভেম্বর দুপুরে সমাজ ক্লাস নেওয়ার সময় সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমান মোল্লা ওই ছাত্রীকে হাতের লেখা করেছো নাকি জিজ্ঞাসা করেন। এ সময় হাবিবুর ওই ছাত্রীর হাত ধরেছেন বলে অভিযোগ করে তার সহপাঠিরা। এ নিয়ে বুধবার সকালে স্থানীয়রা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে উত্তেজিত হয়ে পড়েন এবং তার বিচার দাবি করেন। এ সময় তাকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল বাশার মিয়া বলেন, ওই ছাত্রী ও তার সহপাঠিদের জিজ্ঞাসা করে যতটুকু জানতে পেরেছি সেটা হলো, সোমবার দুপুরে সমাজ প্রিয়ড নেওয়ার সময় শিক্ষক হাবিবুর রহমান মোল্লা ছাত্রীকে হাতের লেখা এনেছো নাকি জিজ্ঞাসা করেন। এ সময় হাবিবুর রহমান ক্লাসের মধ্যে ছাত্রীর হাত ধরেন। তবে এতে প্রমাণিত হয় না যে তাকে যৌন হয়রানি করা হয়েছে। এরপরও অভিযুক্ত শিক্ষক, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং স্কুলের সভাপতিসহ ওই ছাত্রীকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের পর তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

স্থানীয়রা জানান, প্রকৃত ঘটনা আড়াল করা হয়েছে। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আরও যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে। আমরা তার বিচার চাই।

এদিকে, ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্য দাবি করে অভিযুক্ত শিক্ষক হাবিবুর রহমান মোল্লা বলেন, মিথ্যা অভিযোগ এনে কিছু যুবক উত্তেজিত হয়ে প্রধান শিক্ষকের রুমের মধ্যে আমাকে কিল ঘুষি মারে এবং ১০ হাজার টাকা কেড়ে নেয়। এক পর্যায়ে ভয়ে আমি বাথরুমে আশ্রয় নেই।

উল্লেখ্য, অভিযুক্ত হাবিবুর রহমান রাজবাড়ী জেলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সমিতির সভাপতি।

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর