ফেসবুকে প্রেম, অতঃপর সংসার ও সম্ভ্রম হারিয়ে আদালতে যুবতী

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৪:২১ অপরাহ্ণ ,১৬ নভেম্বর, ২০১৬ | আপডেট: ৪:২২ অপরাহ্ণ ,১৬ নভেম্বর, ২০১৬
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার॥ সামাজিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে ফেসবুক এখন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম। নেহাত বাংলাদেশেও এর ব্যবহার কম নয়। ফেসবুক ব্যবহার করে না এমন মানুষ এখন খুঁজে পাওয়াও দায়। শিশু থেকে শুরু করে নারী-পুরুষ বৃদ্ধ সবাই এখন ফেসবুকের দিকে ঝুঁকে পড়েছে। এই ফেসবুকের মাধ্যমেই মানুষ এখন একে অপরের সাথে বন্ধুত্ব গড়ছে। গড়ছে সংসার। আবার এই ফেসবুকের কারণেই কারোর ভাঙছে সংসার। কেউ হারাচ্ছে ইজ্জত। এ রকমই এক ঘটনার স্বীকার হয়ে আদালতে দাঁড়িয়েছে রাজবাড়ী শহরের সজ্জনকান্দা এলাকার এক যুবতী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫সালের ৩০ নভেম্বর ওই যুবতীর (১৯) বিয়ে হয় বালিয়াকান্দিতে। এর ৩মাস পর রাজবাড়ী সদর উপজেলার আলাদীপুর গ্রামের সজিব খান নামের এক যুবকের সাথে তার ফেসবুকে পরিচয় হয়। এ পরিচয়ের সূত্র ধরেই তাদের মধ্যে সর্ম্পক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে সজিব তার সাথে দেখা করতে চায়। তাতে সে রাজী না হলে সজিব তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখায় এবং পূর্বের স্বামীকে তালাক প্রদান করায়। এরপর থেকেই সজিব তাকে বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ধর্ষণ করতে থাকে। এতে সে গর্ভবর্তী হয়ে পড়লে সজিব তাকে ওষুধ খাইয়ে পেটের বাচ্চা নষ্ট করে।

সর্বশেষ, গত ২৯ অক্টোবর রাতে সজিব আলাদীপুর গ্রামে এক বাড়িতে নিয়ে বিয়ের আশ্বাসে তাকে আবারও ধর্ষণ করে। এ ঘটনার পর ওই যুবতী সজিবকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সজিব তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেয়। ফলে উপায় না পেয়ে ওই যুবতী গত ৯ নভেম্বর সজিবকে আসামী করে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করে।

রাজবাড়ী আদালতের মিসপিটিশন নম্বর ২০৩/১৬। ধারাঃ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর (সংশোধনী/০৩) এর ৯(১)। আসামী সজিব আলাদীপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে।

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক


এই নিউজটি 2109 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments