,

সর্বশেষ :
রাতের আঁধারে দরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি ঈদ সামগ্রী পৌঁছে দিলো ‘মানব কল্যাণ ফাউন্ডেশন’ মন্দিরের সামনে গাঁজা খেতে নিষেধ করায় প্রতিমা ভাংচুর বড় ধরণের করোনা ঝুঁকিতে রাজবাড়ী বালিয়াকান্দির নবাবপুর ইউনিয়নের ১১০০ হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ বসন্তপুর ইউনিয়নের ৮০০ হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে সরকারি ত্রাণ বিতরণ হতদরিদ্রদের বাড়ি বাড়ি ঈদের খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিলেন প্রবাসীরা করোনা উপসর্গ নিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু, দুই বাড়ি লকডাউন করলেন এসিল্যান্ড রাজবাড়ীর করোনা যোদ্ধা চিকিৎসকদের N95 মাস্ক দিলেন সাবেক জেলা জজ ‘আসমা আসাদ ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন’-এর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী ও ঈদ উপহার বিতরণ রাজবাড়ীতে ত্রাণ বিতরণে অনিয়মে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

বালিয়াকান্দিতে সুদের টাকা আদায়ের জন্য বৃদ্ধকে ঘরে তালাবদ্ধ : মালামাল লুট

News

রাজবাড়ী ডেস্ক : রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের খালকুলা গ্রামে শনিবার সকালে সুদে টাকা পাওনার দাবীতে এক বৃদ্ধকে নিজ দোকান ঘরে তালা মেরে ৪ঘন্টা আটকে রাখে ও আরেকটি দোকানের মালামাল লুটপাট করে নিয়ে গেছে। সুদে চক্রের হাতে ওই এলাকার মানুষ জিম্মি হয়ে পড়েছে। মুল কারন হিসাবে ওই এলাকায় জুয়ার আসরকে দায়ী করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী আশরাফ শেখ, বিষ্ণু মিয়া, রাহেলা বেগম জানান, উপজেলা ইসলামপুর ইউনিয়নের খালকুলা গ্রামের কুখ্যাত সুদেকারবারী ও নির্যাতনকারী হারুন অর রশিদ ওরফে সুদে হারুর স্ত্রী মরিয়ম বেগম ও এক্ই গ্রামের তার অপকর্মের দোসর আজিজের পুত্র জলিল শেখ শনিবার সকাল ৮টার দিকে পার্শ্ববর্তী বাড়ীর তমিজ উদ্দিন (৮০) কে তার মুদিখানার দোকানের মধ্যে আটকে সামনে থেকে ভাতের থালা ফেলে দিয়ে ক্যাশ বাক্স হতে ২হাজার টাকা নিয়ে বাইরে তালা ঝুলিয়ে দেয়। পাশের রহিম শেখের চায়ের দোকানে ঢুকে ১টি ২১ইঞ্চি রঙিন টেলিভিশন, ৪টি মোবাইল সেট লুটপাট করে নিয়ে যায়। দুপুর ১২টার দিকে ওই এলাকার রেজা, শিপন, আলীম ও খায়রুল নামের যুবকরা এসে তালা ভেঙ্গে বৃদ্ধকে ভিতর থেকে বের করে।
বৃদ্ধ তমিজ উদ্দিন শেখ জানান, তার পুত্র শাহাজাহান শেখ সুদে হারুর কাছ থেকে ৩পিছ বালু, সুরকী নেয়। এজন্য তাকে ১০হাজার টাকা হাওলাত ও মাল বাবদ ৫হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। এখন উল্টো আরো ১৭হাজার টাকার দাবীকে সামনে থেকে ভাতের থালা ফেলে দিয়ে দোকান থেকে ২হাজার টাকা নিয়ে বাইরে থেকে তালা মেরে দেয়। পরে লোকজন এসে তালা ভেঙ্গে উদ্ধার করে।
রহিম শেখ জানান, তার দোকানে একটি রঙ্গিন টেলিভিশন কিনে দেয় হারু। পরে তার টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম ও জলিল শেখ এসে জোড়পুর্বক টাকার দাবীতে টেলিভিশন ও মানুষের চার্জে রাখা ৪টি মোবাইল সেট নিয়ে যায়।
এলাকাবাসী জানিয়েছে, প্রতিদিন খালকুলাতে জুয়ার আসর বসে। জুয়ার আসরের জন্য অনেকেই সুদে হারুর নিকট থেকে টাকা নেয়। এখন গ্রামের প্রায় সবকটি পরিবার হারুর নিকট জিম্মি হয়ে পড়েছে। তার ইচ্ছামত নির্যাতন চালায়। তার হাতে প্রতিনিয়তই নির্যাতনের শিকার হয়ে নিরব থাকে। নির্যাতন করায় হারু জেলও খেটেছে। তারপরও থেমে থাকেনি নির্যাতন। এলাকাবাসী হারু ও তার সাঙ্গপাঙ্গদের হাত থেকে রক্ষার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর