রাজবাড়ীতে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ২:৪৮ পূর্বাহ্ণ ,৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ | আপডেট: ২:৫০ পূর্বাহ্ণ ,৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭
পিকচার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজবাড়ীতে কোকের সাথে চেতনাশক ওষুধ খাইয়ে এক নারী শ্রমিককে (২০) ধর্ষণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে জেলা সদরের মিজানপুর ইউনিয়নের সূর্য্যনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে ওই নারী শ্রমিককে অসুস্থ্য অবস্থায় রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে ওই নারী শ্রমিক জানান, তার বাড়ি সূর্য্যনগর গ্রামে। দরিদ্রতার কারণে সে ফরিদপুর জেলার মধুখালী জুট মিলের শ্রমিক ছিল। সেখানে কাজ করা অবস্থায় মাদারীপুর জেলার শিবচর এলাকার মুক্তার খান (৩৫) নামে এক ব্যক্তির সাথে পরিচয় হয়। সে তাকে বিদেশে পাঠিয়ে দিতে চেয়েছিল। সে কারণে তার সাথে যোগাযোগ ছিল। সম্প্রতি সে সূর্য্যনগর এলাকায় ভাড়া বাসা নিয়ে বসবাস শুরু করে। ওই বাড়ির অন্য রুমে রায়হান নামে এক কোচিং টিচার থাকতো। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে মুক্তার খানসহ আরো এক ব্যক্তি প্রাইভেটকারযোগে তার বাসায় আসে। তারা হোটেল থেকে মাংস খিচুড়ি ও কোক কিনে সঙ্গে আনেন।

এগুলো রায়হানসহ তারা এক সাথে বসে খান। এর কিছুক্ষণ পর রায়হান তার রুমে চলে গেলে সে (নারীশ্রমিক) অচেতন হয়ে পড়েন। এসময় মুক্তার খান ও তার সহযোগী তাকে ধর্ষণ করে কোনো এক সময় চলে যায়। সকালে ঘরের দরজা খোলা ও তাকে এবং অন্য রুমে রায়হানকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে স্থানীয় মাসুদ নামে এক ব্যক্তি তাদেরকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

রায়হান জানান, বহিরাগত দুজন ওই নারী শ্রমিকের পরিচিত ছিল। তারা বাইরে থেকে খিচুড়ি মাংস ও কোক কিনে নিয়ে আসেন। মাংস খিচুড়ি তারা চারজন এক সঙ্গে খাওয়ার পর তাকে কোক খেতে দেয়া হয়। এরপরই তার পেট ব্যথা শুরু হলে তিনি রুমে চলে আসেন এবং এর কিছুক্ষণ পরেই অচেতন হয়ে যান। এর পরে কি হয়েছে তা তিনি কিছুই জানেন না।

এ বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানার এসআই বদিয়ার রহমান জানান, ধারণা করা হচ্ছে এটা প্রেমঘটিত ব্যাপার। তবে এখনো কেউ থানায় অভিযোগ দেননি।

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম/ আশিক

Comments

comments


এই নিউজটি 2758 বার পড়া হয়েছে
[fbcomments"]