,

শিক্ষকের নির্মম পিটুনিতে পঙ্গুপ্রায় কলেজছাত্র

News

রাজবাড়ী নিউজ২৪.কম : শিক্ষকের নির্মম পিটুনিতে পঙ্গু হতে বসেছে কলেজছাত্র আরমান রহমান অন্তর। তার ডান হাতের অবস্থা গুরুতর। রাজধানীর লালমাটিয়ার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজ ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটেছে।

ভুক্তভোগী আরমান রহমান অন্তর ওই কলেজের এইচএসসি বিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র। তার অভিযোগ, সোমবার ক্লাস চলাকালে তারা কয়েকজন সহপাঠী কলেজের ক্যান্টিনে যায় নাস্তা করতে। এরই একপর্যায়ে রসায়নের শিক্ষক জাকির হোসেন ক্যান্টিনে যান শিক্ষার্থীদের খুঁজতে।

অন্তর অভিযোগ করে শিক্ষক জাকির ক্যান্টিনে ঢুকেই স্টিলের স্কেল দিয়ে নির্বিচারে শিক্ষার্থীদের পেটাতে থাকেন। এ অবস্থায় অন্যরা সেখান থেকে সরে যেতে পারলেও নির্মম পিটুনির শিকার হয় অন্তর। স্টিলের স্কেলের আঘাতে তার ডানহাতের কবজির কাছে কেটে যায়। গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়। অবিরাম রক্তপাত হতে থাকে।

এ অবস্থায় সহপাঠীরা দ্রুত তাকে ধানমন্ডির বাংলাদেশ মেডিকেলে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে পাঠানো হয় পঙ্গু হাসপাতালে।

চিকিৎসকরা অন্তরকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে দীর্ঘসময় ধরে পর্যবেক্ষণ করে জানান, অন্তরের হাতের শিরা কেটে গেছে। ফলে বেশ কিছুদিন তাকে পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। তারপরই বলা যাবে তার হাতের ভবিষ্যৎ কী।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদেরকে শারীরিকভাবে আঘাত করার প্রচলন এখন আর নেই। এমনকি স্কুলেও মারধর নিষেধ। সেখানে একটি কলেজে শিক্ষার্থীদের ওপর স্কেল নিয়ে ঝঁপিয়ে পড়ার ঘটনায় শিক্ষক জাকির হোসেনের মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অন্তরের অভিভাবকরা। তারা এ বিষয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজের অধ্যক্ষ জমশেদুর রহমানের কাছে অভিযোগ করেছেন।

এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষক জাকির হোসেনের বক্তব্য জানতে তার মোবাইল ফোনে কল দেয়া হয়। ফোন রিসিভ করার পর সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই তিনি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। পরে আবারো কল দিলে তিনি আর রিসিভ করেননি।

পরে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজের অধ্যক্ষ জমশেদুর রহমানকে ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর