,

পতিতাপল্লী থেকে তরুণী উদ্ধার, আটক ১

News

স্টাফ রিপোর্টার॥ গোপালগঞ্জ থেকে নিখোঁজ হওয়ার ছয় বছর পর রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া পতিতাপল্লী থেকে এক তরুণীকে (২২) উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। পতিতাপল্লীতে জোড়পূর্বক ওই তরুণীকে দিয়ে দেহ ব্যবসা করানো হতো।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) বেলা সোয়া ১১টার দিকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এসময় ওই তরুণীকে দিয়ে দেহ ব্যবসা করানো বাড়িওয়ালা মুকুল শেখকে (২৩) আটক করা হয়।

মুকুল দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীর মৃত বারেক শেখের ছেলে।

র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের দুই নম্বর কোম্পানীর অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রইছ উদ্দিন জানান, ছয় বছর আগে এক ব্যক্তি ওই তরুণীকে ঢাকায় গার্মেন্টেসে চাকরি দেবার কথা বলে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার নিজ বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে আসেন। পরে তাকে দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীতে এনে বিক্রি করে দেওয়া হয়। তারপর থেকে ওই তরুণীকে দিয়ে জোড়পূর্বক দেহ ব্যবসা করানো হতো। এ কাজ না করতে চাইলে তার উপর অমানুষিক নির্যাতন চালানো হতো।

এরমাঝে ওই তরুণীর পরিবার দৌলতদিয়া পতিতাপল্লীতে তরুণীর অবস্থানের বিষয়ে জানতে পারেন। এ ঘটনায় তরুণীর ভাই কাশিয়ানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন এবং তরুণীকে উদ্ধারে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্পের সহযোগিতা চেয়ে একটি আবেদন করেন। এরপর থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধারে অভিযানে নামে র‌্যাব। একপর্যায়ে বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে পতিতাপল্লী থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। এসময় তরুণীকে দিয়ে জোড়পূর্বক দেহ ব্যবসা করানো বাড়িওয়ালা মুকুল শেখকে (২৩) আটক করা হয়।

উদ্ধারকৃত তরুণী ও আটক মুকুলকে গোয়ালন্দঘাট থানায় হস্তান্তর করেছে। পুলিশ ওই তরুণীকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করবে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রইছ উদ্দিন।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর