,

দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড়

News

ফকীর আশিকুর রহমান, নিউজরুম এডিটর॥  রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়েছে। পাটুরিয়া ঘাটে যানজটে নাজেহাল হলেও দৌলতদিয়া ঘাটে পৌঁছানোর পর পেছনের ভোগান্তির কথা ভুলে যাচ্ছেন ঘরমুখো এসব মানুষেরা।

শুক্রবার (২৩ জুন) সকাল থেকেই দৌলতদিয়ার লঞ্চঘাট, ফেরিঘাট ও বাস টার্মিনাল এলাকাগুলোতে দেখা যায় ঘরমুখো মানুষের ভিড়।

স্বাভাবিক সময়ে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চে প্রতিদিন গড়ে ৮/১০ হাজার ছোট-বড় যানবাহনে ২০/২৫ হাজার মানুষ চলাচল করেন। ঈদের সময় এর সংখ্যা বেড়ে যায় কয়েকগুণ।

দুপুরে দৌলতদিয়া ঘাটে দেখাগেছে- চারটি ফেরিঘাটই সচল রয়েছে। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে চলাচল করছে ১৮টি ফেরি। যাত্রীদের পারাপার নির্বিঘ্ন করতে উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের নির্দেশে সকাল থেকে সাধারণ পণ্যবাহি ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন বিআইডব্লিউটিসি ও স্থানীয় প্রশাসন। ঈদের তিন দিন পর পর্যন্ত ট্রাক চলাচল বন্ধ থাকবে।

বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও ফেরির যান্ত্রিক ক্রটি দেখা না দিলে এ রুটে চলাচলকারী যাত্রীরা নির্বিঘ্নে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন। বর্তমানে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ১৮টি ফেরি চলাচল করছে। শনিবার (২৪ জুন) আরো একটি ফেরি যোগ হবে।

এদিকে, দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটে দেখা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে যাত্রী পারাপারের জন্য ২৮টি লঞ্চ চলাচল করছে। যাত্রীরা জানিয়েছেন লঞ্চের ভাড়া আগের মতো ২৫ টাকাই রয়েছে। ঈদকে ঘিরে কোনো বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না।

ঈদে ঘরমুখো যাত্রী রাজবাড়ী জেলা সদরের তারেক পলিন বলেন, পাটুরিয়া ঘাটে যানজট রয়েছে। তবে দৌলতদিয়া ঘাটে কোনো ভোগান্তি নেই। দেখে মনে হচ্ছে ঈদ উপলক্ষে দৌলতদিয়া ঘাটে এবার সর্বকালের সেরা প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। যাত্রীরা নির্বিঘ্নে চলাচল করতে পারছেন।

দৌলতদিয়া লঞ্চঘাটের ম্যানেজার মো. নুরুল আনোয়ার মিলন বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও কাজীরহাট-আরিচা নৌরুটে যাত্রী পারাপারে মোট ৩৩টি লঞ্চ চলাচল করছে। এরমধ্যে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে চলছে ২৮টি লঞ্চ। স্বাভাবিক সময়ের মতো এখনো ভাড়া ২৫ টাকাই নেওয়া হচ্ছে। ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের কাছ থেকে কোনোরকম অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের সুযোগ নেই।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী বলেন, ঈদকে ঘিরে জেলা প্রশাসনের যেসব প্রস্তুতি রয়েছে তা সঠিকভাবে কার্যকর করার লক্ষ্যে আমরা সার্বক্ষণিক কাজ করে চলেছি। আগামী পাঁচ দিনে পদ্মায় পাঁচ ফিট পানি বৃদ্ধির আশঙ্কা রয়েছে, তার প্রস্তুতিও আমরা নিয়েছি। আবহাওয়া ভালো থাকলে যাত্রীদের এবার সর্বকালের সেরা ঈদযাত্রা উপহার দিতে পারবো।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপর সালমা বেগম পিপিএম বলেন, ঈদকে ঘিরে ছিনতাই, মলমপার্টি, পকেটমার ও হিজড়াদের দৌরাত্মসহ সকল প্রকার অপরাধ কর্মকাণ্ড নির্মূল করতে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। ইতোমধ্যে বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাস, থ্রি-হুইলার ও লঞ্চ মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে। সভায় সমিতির নেতাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে যাতে ঈদ উপলক্ষে কোনো যানবাহনে অতিরিক্ত ভাড়া না নেওয়া হয়।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর