,

সর্বশেষ :
পাংশায় অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রাজবাড়ীতে ৪ লাখ টাকার হেরোইনসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক রাজবাড়ীতে কাজী শান্তনু’র নেতৃত্বে ছাত্রলীগের মাতৃভাষা দিবস পালন শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে এসে শ্লীলতাহানির শিকার স্কুলছাত্রী দৌলতদিয়ায় পরিবহন থেকে ফেনসিডিল উদ্ধার, আটক ২ রাজবাড়ীতে অ্যাড. খালেকের নেতৃত্বে বিএনপির মাতৃভাষা দিবস পালন রাজবাড়ীতে আ’লীগের উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস পালিত রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কে কোটি টাকার সরকারি গাছ হরিলুট বেগম খালেদা জিয়া : গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের অগ্রদূত খালেদার মুক্তির দাবিতে আন্দোলনে সক্রিয় তারেকের ভায়রা ভাই মাহিদ

রাজবাড়ীতে ধর্ষণের অভিযোগে সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা

News

স্টাফ রিপোর্টার॥ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তরুণীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে অবশেষে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় রাজবাড়ী সদর উপজেলার মূলঘর ইউনিয়নের বাঘিয়া ঝিনাইদা গ্রামে শামীম মোল্লা (২৫) নামে এক সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

গত ১২জুলাই ওই তরুনী বাদী হয়ে রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে  মামলাটি দায়ের করেন।

সেনা সদস্য শামীম মোল্লা বাঘিয়া ঝিনাইদা গ্রামের আক্কাছ মোল্লার ছেলে। বর্তমানে তিনি কুমিল্লা সেনানিবাসের ময়নামতি ক্যাম্পে চাকুরী করছেন বলে জানা গেছে।

ওই তরুনী জানান, তার বাড়ি জেলা সদরের শহীদওহাবপুর ইউনিয়নের গোয়ালন্দ মোড়ে। তারা দুজন (শামীম ও তিনি) এক সাথে ২০১৫সালে রাজবাড়ীর ডা. আবুল হোসেন কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দেন। সেখান থেকেই তাদের পরিচয়। ২০১৫সালের ১৪এপ্রিল বেড়ানোর কথা বলে শামীম তাকে ফরিদপুর শহরের ঝিলটুলি আবাসিক হোটেলে নিয়ে যায়। সেখানে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শামীম তাকে ধর্ষণ করে।

এরপর থেকে শামীম তাকে ধর্ষণ করে  আসছিলো। সম্প্রতি শামীম তাকে বিয়ে করতে গড়িমসি করলে তিনি পরিবারের কাছে বিষয়টি খুলে বলেন। এরপর তার পরিবারের লোকজন শামীমের পরিবারকে জানায়। কিন্তু শামীম তালবাহানা করতে থাকে। উপায় না পেয়ে তিনি গত ১৭এপ্রিল সকালে শামীমের বাড়িতে গিয়ে উঠেন। তখন শামীমও বাড়িতে ছিল। এঘটনার পরদিন সকালে তার পরিবারের লোকজন শামীমের বাড়িতে বিয়ে প্রস্তাব নিয়ে আসে। কথাবার্তার এক পর্যায়ে শামীম তাকে বিয়ে করতে রাজিও হয়। শামীমের পরিবারও তাকে পুত্রবধূ হিসেবে মেনে নেয়। ওই দিন রাতেও শামীম তার সাথে দৈহিক মেলামেশা করে। পরদিন দুপুরের শামীম কৌশলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি ওই বাড়িতে প্রায় ১৫/২০দিন অবস্থান করেন। এক পর্যায়ে শামীমের চাকুরিতে সমস্যা হবে এবং গোপনে তাদের দুজনের বিয়ে দেয়া হবে, এই বলে তাকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

পরবর্তীতে তিন মাস অতিবাহিত হলেও শামীম তাকে বিয়ে না করে গোপনে অন্যত্র পাত্রী খুঁজতে থাকে। বিষয়টি তিনি টের পেয়ে জুলাই মাসের প্রথম দিকে তিনি আবারো শামীমের বাড়িতে গিয়ে উঠেন। ২/৩দিন তিনি সেখানে অবস্থানও করেন। কিন্তু মোবাইলে শামীম তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেয়।  এব্যাপারে মামলা করলেও তার কোন সমস্যা হবে না বলে সে হুমকি দেয়।

পরে নিরুপায় হয়ে তিনি গত ১২জুলাই আদালতে সেনা সদস্য শামীম মোল্লাকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন। আদালত মামলাটি থানায় এফআইআর হিসেবে রেকর্ড করার জন্য রাজবাড়ী থানার ওসিকে নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের মিসপিটিশন-১৬৬/১৭।

Comments

comments

     এ জাতীয় আরো খবর