‘আমাকে ব্যবহার করা হয়েছে, আমি ভুল করে ফেলেছি’ (ভিডিও)

|রাজবাড়ী নিউজ24

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৭ | আপডেট: ৪:৩৪ অপরাহ্ণ ,১৬ আগস্ট, ২০১৭
পিকচার

রাজবাড়ী নিউজ ডেস্ক : ‘আমাকে ব্যবহার করা হয়েছে, আমি ভুল করে ফেলেছি’। মিতুল ভাই আমাকে ক্ষমা করে দিন, এমপি মহোদয় আমাকে ক্ষমা করে দিন।

এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন গত ৩০ জুলাই রাতে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলায় ককটেলসহ আটক হওয়া যুবক জাহিদুল হাসান সবুজ মুন্সি (২৯)।

বুধবার (১৬ আগস্ট) সকাল অনুমানিক ৯টার দিকে রাজবাড়ী কোর্ট এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে হঠাৎ পুলিশের একটি প্রিজন ভ্যান এ প্রতিবেদকের সামনে এসে থামে। তখন প্রিজন ভ্যান থেকে পুলিশ স্কটে নামার সময় আসামিদের মধ্যে থাকা একজন হঠাৎ ‘সাংবাদিক ভাই’ শোনেন বলে ডাক দেন। এসময় এ প্রতিবেদক এগিয়ে যেতেই পাংশার বিস্ফোরক মামলার আসামি সবুজ মুন্সি প্রতিবেদকের উদ্দেশ্যে বলেন ‘আমাকে ব্যবহার করা হয়েছে, আমি ভুল করে ফেলেছি’। মিতুল ভাই আমাকে ক্ষমা করে দিন, এমপি জিল্লুল হাকিম মহোদয় আমাকে ক্ষমা করে দিন’। আমি ভুল করেছি। এ কথাগুলো বলতে বলতে সবুজ মুন্সি কোর্ট হাজতের দিকে চলে যান।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জুলাই রাত ৮টার দিকে রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আশিক মাহমুদ মিতুল হাকিমের মোটর সাইকেলের বহরে অনুপ্রবেশকারী দুই যুককের মধ্যে জাহিদুল হাসান ওরফে সবুজ মুন্সিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পাংশা উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে রাস্তার উপর থেকে ককটেলসহ আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

এ ঘটনায় পাংশা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিদুল ইসলাম মারুফ বাদী হয়ে পাংশা থানায় মামলা দায়ের করেন। সবুজ মুন্সি বর্তমানে জেল হাজতে রয়েছে। বুধবার এ মামলার ধার্য্য তারিখে তাকে আদালতে আনা হয়। সবুজ মুন্সি পাংশা উপজেলার মৌরাট ইউপির বি-মালঞ্চি গ্রামের মুন্সি সোহরাব হোসেনের ছেলে।

দৈনিক মাতৃকন্ঠের সৌজন্যে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে সবুজ মুন্সির কথোপকথনের ভিডিওটি দেখুন-


এই নিউজটি 1490 বার পড়া হয়েছে

Comments

comments

Developed by: Tech-Loge

x